অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইবোলা ভাইরাসে আক্রান্ত দু’জন আমেরিকান নার্স এখন ভাইরাস মুক্ত


আমেরিকার যে দু’জন নার্স ইবোলা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন, তারা এখন ভাইরাস মুক্ত। এরা লাইবেরিয়া থেকে আসা একজন রোগীর চিকিৎসা করার পর অসুস্থ হয়ে পড়েন। ওদিকে আরেকজন আমেরিকান ইবোলা রোগীর কারণে নিউইয়র্ক শহর এবং তার আশপাশে নতুন করে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, ২০১৫ সালের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে ইবোলা রোগের লক্ষ লক্ষ টিকা তৈরির পরিকল্পনা তাদের আছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার একজন কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেন, এই টিকা পরীক্ষামূলক ভাবে ইতোমধ্যে দু’জন গ্রহণ করেছেন । আরও পাঁচ ধরণের টিকা তৈরী করা হয়েছে, তবে চিকিৎসা ক্ষেত্রে এর প্রয়োগ আগামি বছর করা হবে। যুক্তরাষ্ট্রে নিউইয়র্কের এক চিকিৎসক ইবোলা ভাইরাসের শিকার হয়েছেন। তিনি সম্প্রতি গিনিতে ইবোলা আক্রান্তদের চিকিৎসা করেছেন। এই প্রথম নিউ ইয়র্কে ইবোলা সংক্রমণ ধরা পড়ল। নিউ ইয়র্ক শহরের মেয়র বিল ডে ব্লাসিও জানিয়েছেন, ডঃ ক্রেইগ স্পেনসারকে আলাদা করে রাখা হয়েছে এবং ভয়ের কোন কারণ নেই। তিনি বলেন, ইবোলা সংক্রমণ খুব সহজে ঘটে না, তবে কেবলমাত্র ইবোলা আক্রান্ত রোগীর দেহের রক্ত অথবা আক্রান্ত রোগীর দেহের যে কোন ধরণের তরল পদার্থের সংষ্পর্শে আসলেই সংক্রমণ ঘটে। তিনি বলেন, নিউইয়র্কবাসী আক্রান্ত ব্যক্তির দেহের তরল পদার্থের সংষ্পর্শে আসেনি বিধায় তারা ঝুঁকির সন্মুখীন নন। ডঃ স্পেনসার ডক্টরস উইদাউট বর্ডার্স সংগঠনে সেবামূলক কাজে নিয়োজিত ছিলেন। বৃহস্পতিবার তাঁর প্রচণ্ড জ্বর এবং বমি শুরু হয়। এই দুটি লক্ষণই ইবোলা রোগের। পশ্চিম আফ্রিকার মালিতে প্রথম একজনের ইবোলা সংক্রমণের খরব পাওয়া গিয়েছে।

XS
SM
MD
LG