অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

যুক্তরাষ্ট্র এবং কিউবা পরস্পর পরস্পরের দেশে আবার নতুন করে দূতাবাস খুলছে


যুক্তরাষ্ট্রের পদস্থ এক কর্তাব্যক্তি বলেছেন- যুক্তরাষ্ট্র এবং কিউবা পরস্পর পরস্পরের দেশে আবার নতুন করে দূতাবাস খুলতে সম্মত হয়েছে।পঞ্চাশ বছরেরও বেশি কাল পর এই প্রথম এমোনটি ঘটলো।

হোয়াইট হাউসে প্রেসিডেন্ট ওবামা রৌয গার্ডেন থেকে কিউবা নিয়ে একটা বক্তব্যের অবতারনা করেন।

বলেন- কিউবায় দুতাবাস খোলাটা শুধু প্রতিকী ব্যপার নয়। আমরা এর মধ্যে দিয়ে কিউবার নাগরিকেদের সঙ্গে যোগাযোগ বৃদ্ধি করতে পারবো। এই যোগাযোগ বৃদ্ধি; কিউবার সরকার, নাগরিক সমাজ ও যারা উন্নত জীবনের প্রত্যাশী, এমন সাধারন মানুষর জন্যেও দারুন কাজে লাগবে। এতে সন্ত্রাস প্রতিরোধে সহায়তা হবে ও উন্নয়নসহ নানা বিষয়ে কিউবানদের সঙ্গে সহযোগিতার সম্পর্ক সম্প্রসারিত হবে”।

এই গ্রীস্মে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরী হাভানায় যাচ্ছেন এবং সেখানে তিনি আবার নতুন করে যুক্তরাষ্ট্রের যে দূতবাস খুলছে সেই দূতাবাস ভবনে যুক্তরাষ্ট্রের পতাকা উত্তোলন করবেন।

মি:ওবামা ও কিউবার প্রেসিডেন্ট রাউল ক্যাস্ট্রো গেলো ডিসেম্বরে দু’দেশের মধ্যেকার এই কূটনৈতিক সম্পর্ক আবার স্বাভাবিক করা নিয়ে ঐকমত্যের কথা ঘোষনা করেছিলেন-যে সম্পর্ক বেশ কয়েক মাসের গোপন আলোচনা-কথাবার্তার পর বিচ্ছিন্ন হয়েছিলো,ঠান্ডা লড়াই যখন তূঙ্গে,সেই তখন।এর পর অনেক বারই দু’দেশের রাজধানীতে উভয় দেশের প্রতিনিধিরা কথা বলেছেন পরস্পর বহুবার।এই গেলো এপ্রিলে পানামায় আঞ্চলিক এক শীর্ষ বৈঠকের সময়,পৃথকভাবে,ভিন্ন আয়োজনে অনুষ্টিত ঐতিহাসিক বৈঠকে পরস্পর মুখোমুখি হন মি:ওবামা ও মি,কাস্ট্রো।আর সে পটভুমিতেই,প্রত্যাহৃত হয় যুক্তরাষ্ট্র প্রণীত রাষ্ট্র-প্রনোদনায় পরিচালিত সন্ত্রাসী তালিকা থেকে কিউবার নাম।

XS
SM
MD
LG