অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কলকাতার সরকারি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ড


এরাজ্যে কখনও মাল্টি স্পেশালিটি, কখনও বা জেলা হাসপাতালে ছড়িয়েছে আগুন-আতঙ্ক….এবার আগুনের লেলিহান শিখা গ্রাস করল রাজ্যের একেবারে প্রথম সারির হাসপাতালকে! আজ সকাল সোয়া এগারোটায় এসএসকেএম হাসপাতালে তখন সবে রোগীদের ভিড় জমতে শুরু করেছে…সেই সময়ই আগুন! জানা যায়, আগুনের উৎসস্থল রোনাল্ড রস ব্লকের ৬ তলায় লাইব্রেরি রুম।প্রথমে ধোঁয়া দেখা গেলেও, পরে দাউদাউ করতে জ্বলতে থাকে আগুন।আতঙ্ক গ্রাস করে গোটা হাসপাতাল চত্বরকে।খালি করে দেওয়া হয় রোনাল্ড রস ব্লক।বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয় এই বিল্ডিংয়ের বিদ্যুত্‍ সংযোগ।কিছুক্ষণের মধ্যেই হাসপাতালে পৌঁছয় দমকলের দুটি ইঞ্জিন।আনা হয় হাইড্রোলিক ল্যাডার। পৌঁছয় লালবাজারের রিজার্ভ ফোর্স। এজেসি বোস রোডের দিকের দেওয়াল ভেঙে, আগুনে আটকদের উদ্ধারের চেষ্টা শুরু করে বিপর্যয় মোকাবিলা দল।আগুনের ভয়াবহতা দেখে, সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ পাঠানো হয় দমকলের আরও আটটি ইঞ্জিন।এরপরই তড়িঘড়ি এসএসকেএমে পৌঁছন দমকলমন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়।পৌনে বারোটায় যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।পরিস্থিতি মোকাবিলায় তদারকি শুরু করেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান।পৌছন দমকল বিভাগের ডিরেক্টর জেনারেলও।কিন্তু তখনও রোনাল্ড রস ব্লকের ছ’তলার আগুনকে নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি।বেলা বারোটায় দমকলের ইঞ্জিনের সংখ্যা বেড়ে হয় উনিশ।দমকলকর্মীরা যখন আগুন নেভানোর জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করছেন, তখন হাসপাতাল জুড়ে শুধুই আতঙ্কের পরিবেশ। রোগী, তাঁদের পরিজন থেকে চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী…..এসএসকেএম চত্বরে উপস্থিত হাজার-হাজার লোকের ভাগ্য তখন এক সুতোয় ঝুলছে….!অগ্নিকাণ্ডের জেরে রোনাল্ড রস ব্লকের বেশ কয়েকটি অংশের দেওয়াল ভেঙে পড়ে…কয়েকটি জায়গায় দেখা যায় চওড়া ফাটল।এভাবেই কেটে যায় প্রায় দেড় ঘণ্টা।বেলা সাড়ে বারোটা নাগাদ দমকল জানিয়ে দেয় এসএসকেএমের আগুন নিয়ন্ত্রণে।এরপর সকলে হাঁফ ছেড়ে বাঁচেন…কিন্তু আতঙ্ক এতটুকুও কাটেনি!সকলেরই প্রশ্ন, রাজ্যের একমাত্র সরকারি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের অগ্নিসুরক্ষার যদি এই হাল হয়, তাহলে বাকি হাসপাতালগুলোর কি হাল এমনই সব প্রশ্ন ঘুরছে সাধারণের মুখে।

XS
SM
MD
LG