অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ট্রিলজির প্রকাশনাই সামনের পরিকল্পনা : আনিসুল হক

  • আনিস আহমেদ

ট্রিলজির প্রকাশনাই সামনের পরিকল্পনা : আনিসুল হক

ট্রিলজির প্রকাশনাই সামনের পরিকল্পনা : আনিসুল হক

আনিসুল হক এ বছর বাংলা কথা সাহিত্যের জন্যে বাংলা একাডেমি পুরস্কার পেয়েছেন। তিনি যে কেবল গল্প উপন্যাস লেখেন তাই নয় , লিখেছেন নাটক , কবিতা , ছোটদের জন্যে ও তাঁর লেখা রয়েছে , লিখেছেন চিত্রনাট্য ও। পেশায় সাংবাদিক , নেশায় সাহিত্যিক , আনিসুল হকের ভয়েস অফ আমেরিকার সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে তাঁর লেখক জীবনের নানান দিক তুলে ধরেছেন। তিনি তাঁর সামনের দিনের পরিকল্পনা সম্পর্কে বলেন যে এ বছর একুশের বই মেলায় প্রকাশিত তাঁর ইতিহাস-ভিত্তিক উপন্যাস , যারা ভোর এনেছিল , তার পরবর্তী পর্বগুলোও প্রকাশের পরিকল্পনা রয়েছে তাঁর। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাজউদ্দিন আহমেদের মত ঐতিহাসিক চরিত্রের কথা রয়েছে তাঁর ঐ উপন্যাসে যারা এক অস্বাভাবিক ট্র্যাজেডির মুখোমুখি হয়েছেন পরবর্তী সময়ে। আনিসুল হক বলেন যে যারা ভোর এনেছিল উপন্যাসটিতে তিনি এ পর্যন্ত ১৯৫২ সালের ফেব্রুয়ারী মাস পর্যন্ত আসতে পেরেছেন কিন্তু এই দুই মহান চরিত্রকে নিয়ে ঘটনাপ্রবাহ আরও বিস্তৃত , আরও গভীর। সে জন্যেই তিনি এই বইয়ের দ্বিতীয় , তৃতীয় খন্ড প্রকাশ করবেন, হয়ত ভিন্ন ভিন্ন নামে এক অভিন্ন ট্রিলজি লেখা হবে। ট্রিলজির প্রকাশনাই সামনের পরিকল্পনা : আনিসুল হক

ট্রিলজির প্রকাশনাই সামনের পরিকল্পনা : আনিসুল হক

মূলত বিজ্ঞানের ছাত্র আনিসুল হক , কিভাবে সাহিত্যে আগ্রহী হলেন সে প্রসঙ্গে তিনি বলেন যে প্রকৌশল বিজ্ঞান পড়াটা ছিল খুব একটা প্রথাসিদ্ধ বিষয় কিন্তু তিনি মূলত সাহিত্য রচনাই করতে চেয়েছেন , সুনির্দিষ্টভাবে বললে বলতে হবে তিনি কবি হতে চেয়েছেন । কিন্তু কবিতার পাশপাশি সাহিত্যের সব শাখাতেই যে তার বিচরণ সে কথাও মানলেন তিনি এবং এখন যে কথাসাহিত্যিক কিংবা নাট্যকার হিসেবে যে তাঁর খ্যাতি ছড়িয়েছে সেটাও সত্যি কথা।

আনিসুল হক মনে করেন যে সংবাদপত্রে তাঁর কলাম লেখা ও এক ধরণের লেখাই বটে এবং এগুলোর মধ্যে তিনি কোন দ্বন্দ্ব দেখেন না। তিনি তাঁর লেখার ব্যঙ্গরসের বিষয়েও আলোকপাত করেন এই সাক্ষাৎকারে।


XS
SM
MD
LG