অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ফরাসি পুলিশ সন্ত্রাসীকে অস্ত্রসমর্পণ করানোর চেষ্টা করছে


ফরাসি পুলিশ একজন লোককে আত্মসমর্পণ করানোর চেষ্টা করছে , যার বিরুদ্ধে অভিযোগ হচ্ছে যে সাতজনকে গুলি করে হত্যা করেছে, যার মধ্যে টুলুজ শহরের একটি স্কুলের তিন জন ইহুদি শিশু ও রয়েছে। কর্মকর্তারা বলছেন যে এই সন্দেহভাজন লোকটি হচ্ছে ২৪ বছর বয়সী আলজেরীয় বংশোদ্দ্ভূত ফরাসী নাগরিক মোহাম্মদ মেরাহ যে দবি করছে যে সে আল ক্বায়দার সঙ্গে সম্পৃক্ত ।

ফ্রান্সের একজন অভিশংসক বলছেন যে মেরাহ পাকিস্তান ও আফগানিস্তানে কিছু সময় ছিল এবং যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী তাকে ফ্রান্সে পাল্টা ফেরত পাঠায় । তিনি বলেন যে টুলুস এলাকায় মেরাহ সৈন্য ও পুলিশের ওপের আরও হামা চালানোর পটরিকল্পনা করছিল। ফরাসি কর্মকর্তারা বলছেন যে মেরাহ বলেছে যে সে বুধবার সন্ধ্যায় আত্মসমর্পণ করবে। পুলিশ তার ভাই ও মেয়ে বন্ধুকে আটক করেছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ক্লদ গুয়ে বলছেন যে পুলিশ মেরাহকে জীবিত অবস্থায় আটক করতে চায়।

গুয়ে বলছেন যে বিদেশে ফরাসী সামরিক বাহিনীর হস্তক্ষেপ সম্পর্কে এই অভিযুক্ত ব্যক্তিটি ক্ষুব্ধ এবং বলেন যে মধ্যপ্রাচ্যে ফিলিস্তিনি শিশু হত্যার সে প্রতিশোধ নিতে চাইছিল। ফিলিস্তিনি প্রধানম্ত্রী সালাম ফাইয়াদ এই হত্যাকান্ডের নিন্দে জানিয়ে বলেছেন যে অপরাধীদের অপরাধে যৌক্তিকতা দেয়ার জন্যে ফিলিস্তিনিদের অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করা বন্ধ করার সময় এসছে।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট নিকোলা সারকোজি তার নির্বাচনী অভিযান স্থগিত করে বলেন গোটা দেশকে একতাবদ্ধ হতে হবে। দেশটি সহিংসতার কছে আত্মসমর্পণ করতে পারে না।

বন্দুক ধারীটি একজন ইহুদি ধর্মযাজক এবং তিনজন শিশু হত্যার জন্যে অভিযুক্ত। চার , পাচ এবং সাত বছর বয়সী এই শিশুরা তুলুজের একটি ইহুদি স্কুলে লেখাপড়া করতো। তাদের মরদেহ ইসরাইলে নিয়ে যাওয়া হয় যেখানে হাজার হাজার ক্রন্দনরত শোকার্ত লোকের সঙ্গে , শেষ কৃত্যে যোগ দেন ফরাসী পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যালেঁ জুপেও।

XS
SM
MD
LG