অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

হ্যালো ওয়াশিংটন: বাংলাদেশে সাম্প্রতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি: গণতন্ত্রের প্রতি নতুন চ্যালেঞ্জ

  • আনিস আহমেদ

বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং দেশটির স্বাধীনতা সংগ্রামের বিভিন্ন পর্যায় বিশ্লেষণ করলে আমরা দেখতে পাই যে রাজনৈতিক মাত্রায় মুখ্য ছিল মানুষের গণতান্ত্রিক চেতনাবোধ। সে জন্যেই তৎকালীন পূর্ব বঙ্গে কিংবা পরবর্তীতে পূর্ব পাকিস্তানে জনগণের অধিকার যখনই খর্ব করা হয়েছে , সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগোষ্ঠিকে যখনই দমন করা হয়েছে , তখনই বাঙালি প্রতিবাদ করেছে এবং “প্রতিবাদের ভাষা হয়েছে প্রতিরোধের আগুন”।

কিন্তু যে গণতান্ত্রিক অধিকারকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশের জন্ম , সেই অধিকার স্বাধীন বাংলায় খর্ব করেছে কখনও সামরিক বাহিনী , কখনও বা অসামরিক শাসক গোষ্ঠি। সামরিক অভূত্থানে নিহত হয়েছেন দু দু জন রাষ্ট্রপতি, অসামরিক সরকারগুলির আমলেও লক্ষ্য করা গেছে হত্যা , খুন , অপহরণ ইত্যাদি। সম্প্রতি বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি একের পর এক ইস্যুতে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। বিরোধীদলের সাবেক সাংসদ ইলিয়াস অালীর গুম হওয়া যেমন নিন্দনীয় ব্যাপার, তেমনি নিন্দনীয় ব্যাপার হরতালের সময়ে পুলিশ কিংবা রাজনৈতিক কর্মিদের হাতে সাধারণ মানুষের প্রাণ সংহারের বিষয়টি। আর এ সব কিছুই ঘটছে যখন অন্তত রাজনৈতিক অর্থে দেশে গণতান্ত্রিক সরকার রয়েছে।

ঘটনা পরম্পরায় , গণতন্ত্রের এ্ই ভঙ্গুর অবস্থায় প্রশ্ন উঠতেই পারে গণতন্ত্র কি আবার নতুন করে কোন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে ? আর পরিহাসের ব্যাপার , এই আত্মঘাতী চ্যালেঞ্জ কি ছুড়ে দিচ্ছে রাজনৈতিক দলগুলো নিজেরাই। এই তো সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন তাঁর ঢাকা সফরের সময়ে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে বোঝাপড়ার কথা বললেন, বললেন সংলাপের কথাও। আজ ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও প্রায় একই ধরণের পরামর্শ দিয়েছে অথচ বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতিতে এতটাই মেরুকরণ ঘটেছে যে সেখানেও সাধারণ সৌজন্য লংঘিত হচ্ছে । এই সব চ্যালেঞ্জ এবং বিপত্তি নিয়েই এবং একে অতিক্রম করার উপায় নিয়ে এই কল ইন শো।

আজ টেলিসম্মিলনি লাইনে আমাদের অতিথি প্যানেলে রয়েছেন , ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের পরিচালক ড শাহ দীন মালিক, আছেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট সাংবাদিক , নিবন্ধকার ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক আবেদ খান এবং যুক্তরাস্ট্রের ইলিনয় স্টেট ইউনিভার্সিটির গভর্ণমেন্ট এন্ড পলিটিক্স বিভাগের অধ্যাপক আলী রীয়াজ।

XS
SM
MD
LG