অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইরানের সঙ্গে জাতিসংঘের পারমানবিক সংস্থার কর্মকর্তাদের বৈঠক আজ ভিয়েনায় শুরু হয়েছে। আন্তর্জাতিক আনবিক শক্তি সংস্থর কর্মকর্তারা তাদের দু দিনের এই আলোচনার সময়ে , তেহরানের কাছে পারচিন সামরিক ক্ষেত্রটি পরিদর্শনের জন্যে ইরানের ওপর চাপ প্রয়োগ করতে পারেন। ইরান এখনও ঐ স্থাপনা পরিদর্শনের জন্যে জাতিসংঘের অনুরোধ মেনে নেয়নি। কর্মকর্তারা সন্দেহ করছেন যে ইরান সেখানে বিস্ফোরক পরীক্ষার জন্যে একটি আধার নির্মাণ করেছে। আজকের এই বৈঠক সম্পর্কে আইএই এ’র উপ মহাপরিচালক এবং জাতিসংঘ পারমানবিক পরিদর্শক হারম্যান ন্যাকার্টস বলছেন :

যে তারা ইরানের সঙ্গে একটা ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে সংলাপ চালিয়ে যেতে এসছেন। এই দুদিনের আলোচনার উদ্দেশ্য হচেছ ইরানের সঙ্গে সব রকমের বিষয় নিস্পত্তির লক্ষে একটি সমঝোতায় পৌছুনো । পশ্চিমি কুটনীতিকরা বলছেন যে তাদের এ ব্যাপারে সন্দেহ হচ্ছে যে জাতিসংঘের পরিদর্শকদের ঐ স্থাপনার ভেতরে নেওয়ার আগে তারা এ ধরণের যে কোন প্রমাণ সরিয়ে ফেলতে চায় যাতে ইরানের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হয়।

ইরান এবং জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ৫ সদস্য ও জার্মানী অর্থাৎ পি ফাইভ প্লাস ওয়ানের মধ্যে আলোচনা হবে বাগদাদে ২৩শে মে । তারা ইরানের পারমানবিক স্থাপনাগুলি সম্ভাব্য সামিরক ক্ষমতা মূল্যায়ন করে দেখবেন।

এ দিকে নাম প্রকাশ করা হয়নি , যুক্তরাষ্ট্রের এমন কর্মকর্তাদের উদ্ধৃত করে দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকা বলছে যে ইরান গত এপ্রিল মাস থেকে তার সমুদ্রগামি জাহাজের স্যাটেলাইট ট্র্যাকিং প্রক্রিয়া প্রায় নিয়ম করেই বন্ধ রাখছে। সংবাদপত্রটি আরো জানিয়েছে যে ইরানের এই কর্মকান্ড , যা কীনা নৌ চলাচল বিষয়ক আইন লংঘন করছে সেটির দিকে গভীর নজর রাখছে আন্তর্জাতিক জ্বালানি সংস্থা

XS
SM
MD
LG