অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

অলিম্পিক সমাচার: যুক্তরাষ্ট্রের মহিলা ফুটবল দল

  • রোকেয়া হায়দার

যুক্তরাষ্ট্রের মহিলা ফুটবল দল গত দুই বারের অলিম্পিকে সোনার পদক জিতেছে এবং আগামী মাসের লন্ডন গেমসে সেই সোনার স্বপ্ন নিয়েই তারা মাঠে নামবে। এখন চলছে তাদের অলিম্পিক প্রস্তুতি পর্ব।

আজ নিউজার্সিতে তাদের প্রশিক্ষণ শিবিরের বর্ণনার কথা তুলে ধরছেন রোকেয়া হায়দার।

গত বছর জার্মানীতে বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনালে পরাজয় সত্ত্বেও, বিশ্বে মহিলা ফুটবলের সেরা দল এখন যুক্তরাষ্ট্র। আমেরিকান মহিলারা এথেন্স এবং বেজিং দুই মাঠেই স্বর্ণপদক জিতেছে। দলের কোচ পিয়া সুন্ডহাগা বলেন, এই দলটি সাফল্যের জন্য যে চাপ থাকে সেটা পছন্দ করে। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি এটা আনন্দের বিষয় যে মানুষ চান আমরা জয়লাভ করি অথবা মনে করেন যে আমাদের জন্য তৃতীয়বার সোনার পদক জয় করা সম্ভব’।

কোচের খেলোয়াড় তালিকার ১৮জনের মধ্যে ১১জনের এর আগে অলিম্পিকে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমরা বর্তমানে আগে চাইতে ভাল দল এবং আমি এতে করে অত্যন্ত আনন্দিত। এবং আমাদের দলে অনেক ধরণের খেলোয়াড় রয়েছেন। আমাদের টেকনিক্যাল খেলোয়াড় আছেন। আমাদের অভিজ্ঞ খেলোয়াড় আছেন। তরুন খেলোয়াড়ও আছে। তাই সবাই মিলে যখন গ্রেটবৃটেনে খেলতে নামবে ভাল হবে’।

মাঝ-মাঠের খেলোয়াড় ২৭ বছর বয়সী হিথার ও’রাইলী তার তৃতীয় অলিম্পিকে মাঠে নামবেন। তিনি মনে করেন ‘আমি ২০০৪ ও ২০০৮ সালে সোনার পদক জিতেছি, তবে কি জানেন অন্য কোন পদক আমরা চাই না। এতে যথেষ্ট চাপ থাকে। এটা সত্যি কথা। লোকে আমাদের বিষয়ে সেটাই আশা করবেন তাই স্বাভাবিক। সেখানে আমরা আমেরিকার প্রতিনিধিত্ব করবো’।

আর এই প্রথম অলিম্পিকে খেলার সুযোগ পেলেন ২১ বছর বয়সী এ্যালেক্স মরগান। গত বছরের বিশ্বকাপে চমত্কার খেলেছে, তার কথা – ‘আমি সত্যিই খুব এক্সাইটেড। চারপাশে শত শত খেলোয়াড় থাকবেন। অনেকে কয়েকবছর ধরে এই মূহুর্তটির জন্য অপেক্ষায় রয়েছেন। সারা জীবন অপেক্ষা করেছেন। আমরা সবাই সেই অভিজ্ঞতার কথা উপলব্ধি করি। জীবনে অনেক কিছু ছাড় দিতে হয়। সত্যিই দারুণ অভিজ্ঞতা’।

লন্ডন অলিম্পিকে জুলাই মাসের ২৫ তারিখে মহিলা ফুটবল শুরু হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দুই দিন আগে। কোচ সুন্ডহাগার দেশ সুইডেনও খেলতে নামবে লন্ডনের মাঠে মাঠে। তিনি বলেন, বর্তমানে মহিলাদের ফুটবল আরও প্রতিযোগিতামুলক হয়ে উঠেছে। এখন অনেক ভাল ভাল দল খেলছে। তবে নিউজার্সিতে যারা প্রস্তুতি খেলা দেখছেন, সেই দর্শকদের কাছে যুক্তরাষ্ট্র দলের যেন তুলনা হয় না। তারাই অলিম্পিকের সোনার পদক নিয়ে ঘরে ফিরবেন।

XS
SM
MD
LG