অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

স্মরণ দিবসের স্মরণীয় মূহুর্তের কথা

  • রোকেয়া হায়দার

স্মরণ দিবসের স্মরণীয় মূহুর্তের কথা

স্মরণ দিবসের স্মরণীয় মূহুর্তের কথা

আজ ‘মেমোরিয়াল ডে’ বা স্মরণ দিবস । এই দিনটি পালন শুরু হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের গৃহযুদ্ধে নিহত সৈনিকদের স্মরণে । পরে প্রথম ও দ্বিতীয় মহাযুদ্ধ, কোরিয়া যুদ্ধ, ভিয়েতনাম যুদ্ধ আর এখন আফগানিস্তান ও ইরাক যুদ্ধে নিহতদের স্মরণে এই স্মরণ দিবস পালিত হচ্ছে ।

গতকাল রবিবার ক্যাপিটলের সামনে মঞ্চে সাজানো হয় কিছু জীবন কাহিনী আর সঙ্গীতের অনুষ্ঠান । নিহত সৈনিকদের পরিবার পরিজন বিভিন্ন অনুষ্ঠানেই যোগ দেন । যেমন ছিলেন ভিয়েতনাম যুদ্ধ নিহত রিচের মেয়ে মিশেল । জন্মের সময় মিশেল বাবাকে হারিয়েছে ভিয়েতনামের যুদ্ধ ক্ষেত্রে । ৫ বছর বয়সে নানা জিজ্ঞাসার পর, মায়ের কাছ থেকেই বাক্সে রাখা বাবার কিছু জিনিষপত্র হাতে পেয়েছে । ১১ বছর বয়সে মিশেল জানলো তার বি-পিতা তার আসল বাবা নন । তার আসল বাবা মারা গেছেন ভিয়েতনামে । প্রখ্যাত এক অভিনেতা যিনি ভিয়েতনাম যুদ্ধে গিয়েছিলেন তিনিই একদিন মিশেলের সন্ধান করে তাকে তার বাবার কথা জানালেন । ২১ বছর বয়সে মিশেল গেল ভিয়েতনামে, সেই জায়গাটি দেখলো যেখানে তার বাবা মারা যান । মিশেলের জীবন যেন পূর্ণ হলো । সেখানকার মাটি ছূঁয়ে দেখলো হাতে পেল যেন বাবার স্পর্শ ।দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের একটি ছবি কয়েক সেকেণ্ডের দূর্লভ মূহুর্ত ।

১৯৪৫ সালে এসোসোয়েটেড প্রেসের তরুণ চিত্র সাংবাদিক জো রোসেনথাল তার ক্যামেরায় ঐতিহাসিক সেই ছবিটি ধরে রাখেন । ১৯৪৫ সালের ২৩শে ফেব্রুয়ারী প্রশান্তমহাসাগরীয় দ্বীপ ইও জিমা জাপানী সৈন্যদের নিয়ন্ত্রণে । সেই ইও জিমায় ৬জন দুঃসাহসী আমেরিকান মেরিন সেনা - যুক্তরাষ্ট্রের পতাকা উড়িয়েছিল । আমেরিকার মেরিন সেনারা দ্বীপটির নিয়ন্ত্রণের জন্য যুদ্ধ করছিল । মেরিন সেনারা যখন প্রানপণ চেষ্টা করে জাতীয় পতাকা তুলে ধরার করার চেষ্টা করছিল, সেইসময় জো মনে মনে বলে উঠলেন – ‘দেয়ার ইট গোস’!

ছবিতে রয়েছেন ৬জন নয় চারজন – টেক্সাসের হার্লন ব্লক, নৌবাহিনীর কোরম্যান জন ব্র্যাডলী, কেন্টাকির মেরিন ফ্র্যাংকলিন সুসলি, আর মেরিন ইরা হেস, একজন আমেরিকান ইণ্ডিয়ান । তাদের সঙ্গে ছিলেন ২জন মেরিন সেনা – নিউহ্যাম্পশায়ার রাজ্যের রেনে গ্যানন আর পেনসিলভানিয়ার মাইক স্ট্রাংক ।

আমেরিকার ভবিষ্যত বিজয়ের সেই ছবি এখন ওয়াশিংটনের উপকণ্ঠে মূর্ত হয়ে রয়েছে ইও জিমার মূর্তি হয়ে ।

XS
SM
MD
LG