অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ব্রিটেন ইরান থেকে কয়েকজন কুটনীতিককে প্রত্যাহার করছে


ব্রিটেন ইরান থেকে কয়েকজন কুটনীতিককে প্রত্যাহার করছে

ব্রিটেন ইরান থেকে কয়েকজন কুটনীতিককে প্রত্যাহার করছে

মঙ্গলবার তেহরানে ব্রিটিশ দূতাবাসের উপর কিছু লোকের হামলার পর ব্রিটেন ইরান থেকে তার বেশ কয়েকজন কুটনৈতিক কর্মিকে প্রত্যাহার কর নিচ্ছে এবং নরওয়ে তেহরানে তার দূতাবাস বন্ধ করে দিয়েছে।

ব্রিটিশ পররাষ্ট্র দপ্তর বুধবার জানিয়েছে যে ব্রিটিশ দূতাবাসের কর্মি এবং তাদের পরিবারের নিরাপত্তাকে অগ্রাধিকার দিয়ে তারা ঐ দূতাবাস আংশিক খালি করার নির্দেশ দিয়েছে। তারা বলে নাই যে ক জন কর্মচারিকে ইরান ছেড়ে যাচ্ছেন এবং এটা ও জানা যায়নি যে তেহরানে তাদের মিশন বন্ধ করা হবে কী না। পশ্চিমি কুটনীতিকরা ফরাসি বার্তা সংস্থাকে জানিয়েছে যে দূতাবাস ত্যাগকারী প্রথম ব্রিটিশ দলটিকে দুবাইগামী ফ্লাইটের জন্যে তেহরান বিমান বন্দরে নিয়ে যাওয়া হয়।

নরওয়ের সরকার বলেছে যে তারা মঙ্গলবার দিনের শেষে নিরাপত্তাজনিত কারণে তেহরানে তাদের দূতাবাস বন্ধ করে দিয়েছে। তবে োসলো সরকার বলেছে যে আপাতত মুষ্টিমেয় নরওয়েজিয়ান কুটনীতিক ইরানের রাজধানীতে থাকবেন।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন মঙ্গলবার বলেন যে ইসলামপন্থিদের হাত থেকে ব্রিটিশম কুটনীতিকদের রক্ষা করতে ব্যর্থ হওয়ার জন্যে ইরানকে গুরুতর পরিণতির মুখোমুখি হতে হবে। ঐ ইসলামপন্থিরা দূতাবাসের জানালা চুরমার করে এবং অফিস তছনছ করে । সেই সময়ে পুলিশ নীরব দর্শকের ভুমিকা পারণ করছিল। ঐ বিক্ষোভকারীরা ইরানের উপর ব্রিটেনের নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে সে দেশের সরকারের উস্মা প্রকাশের জন্যেই দূতাবাস ভবনের বাইরে সমবেত হয়।

আজ এই আক্রমণের নিন্দে হয়েছে বিশ্বব্যাপী। জাতিসংঘের মহাসচিব বান কী মুনের দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে যে দক্ষিণ কোরিয়ার বুসানে সাহায্য বিষয়ক একটি সম্মেলনের পার্শ্ব বৈঠকে , তিনি ব্রিটিশ কর্মকর্তাদের কাছে এ ব্যাপারে তার দুঃখ এবং ক্ষোভ প্রকাশ করেন। জাতিসংঘের প্রধান এই ঘটনার তদন্তের জন্যে এবং সেখানে কিংবা অন্য কোন কুটনৈতিক মিশনে এ ধরণের ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে ইরানের প্রতি আহ্বা্ন জানিয়েছেন।

বুসানেই যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন ঐ আক্রমণের তীব্র নিন্দে করে বলেন যে এটি কেবল যে ব্রিটিশ জনগণকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে অপমান করা হয়েছে তাই নয় , অপমান করা হয়েছে গোটা আন্তর্জাতিক সমাজকেও। তিনি বলেন ওয়াশিংটন আশা করে যে আন্তর্জাতিক নিয়ম নীতি মতো ইরান কুটনীতিকদের জীবন ও সম্পদ রক্ষা করবে। চীন ও বলেছে যে দূতাবাসের ঐ আক্রমণ ছিল আন্তর্জাতিক আইনের পরিপন্থি।

ইরানের সংসদের নেতা আলী আকবার লারজানি আজ বলেছেন যে ইরানের পুলিশ পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করেছিল। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ যে এই ঘটনার নিন্দে করেছে তিনি তার ও সমালোচনা করেন।

XS
SM
MD
LG