অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

হ্যালো ওয়াশিংটনে আজকের বিষয়: বাংলাদেশে ব্লগার ও শিশু হত্যা

বিয়য়টি নিয়ে কথা বলছেন গনজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরাইন এইচ সরকার, নিরাপত্তা বিশ্লেষক এয়ার কমোডর (অব:) ইশফাক ইলাহী চৌধুরী এবং বিশিষ্ট সাংবাদিক সুমী খান।

আজকের আলোচনায় দুটি প্রসঙ্গ। ব্লগার হত্যা এবং শিশু হত্যা। আমরা জানি গত ছয়মাসে দেশে নৃশংসভাবে খুন হয়েছন ৫ জন লেখক ও ব্লগার। খুনীদের বর্বরতার সবশেষ শিকার - ব্লগার নিলয় নীল। মূল নাম নিলাদ্রী চট্টপাধ্যায়। ৭ই আগষ্ট শুক্রবার ঢাকার খিলগাওয়ের ফ্লাটে ঢুকে দুবৃত্তরা তাকে কুপিয়ে মারে। এর আগে খুন হন রাজীব হায়দার, অভিজিৎ রায়, ওয়াশিকুর রহমান বাবু, অনন্ত বিজয় দাস।

২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি মিরপুরের কালসীতে খুন হন ব্লগার রাজীব হায়দার। সেটিই প্রথম কোন ব্লগারকে হত্যার ঘটনা। এর দুই বছরের মাথায় এ বছর ফেব্রুয়ারীতে হত্যা করা হয় বাংলাদেশী-আমেরিকান লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায়কে।

মার্চে খুন হন ওয়াশিকুর রহমান বাবু, মে মাসে অনন্ত বিজয় দাস এবং সবশেষ ৭ আগষ্ট নীলাদ্রি চট্টোপাধ্যায় নিলয়।

এছাড়াও ২০১৪ সালের ২৭ অগাস্ট খুন হন টেলিভিশনে ইসলামী অনুষ্ঠানের উপস্থাপক নুরুল ইসলাম ফারুকী। ২০১৩ সালের ২১ ডিসেম্বর কথিত পীর লুৎফুল রহমান ফারুক ও তার ছেলেসহ ছয় জনকে বাসায় ঢুকে হত্যা করা হয়।

আর সবগুলো হত্যাকাণ্ডের ধরন ছিল একই রকম, ব্যবহার করা হয় চাপাতি ও ধারালো অস্ত্র।

আর শিশু হত্যা প্রসঙ্গে সংক্ষেপে বলা যায়; ৮ জুলাই সিলেটের কুমারগাঁওয়ে চুরির অভিযোগ তুলে শিশু সামিউল ইসলাম রাজনকে পিটিয়ে হত্যা করে কয়েকজন। (ওই নির্যাতনের দৃশ্য ভিডিও করে তারা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিলে সারা দেশে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে সিলেটের জালালাবাদ থানার এক পরিদর্শক ও দুই এসআইকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।)

রাজন হত্যার পর মাস না পেরোতেই গত সোমবার রাতে খুলনা নগরীর টুটপাড়ায় একটি গ্যারেজে মলদ্বার দিয়ে হাওয়া ঢুকিয়ে হত্যা করা হয় মো.রাকিব নামে ১২ বছর বয়সী আরেক শিশুকে।

পরদিন বরগুনার তালতলী উপজেলায় মাছ চুরির অভিযোগে রবিউল আউয়াল নামে ১০ বছরের এক শিশুকে শাবল দিয়ে আঘাত করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব নিয়ে স্রোতাদের প্রশ্ন ও আলোচকদের মন্তব্য শোনা যাক।

XS
SM
MD
LG