অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

শেষ হলো পৌরসভা নির্বাচন, বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনায় নিহত একজন


বাংলাদেশে দলীয় ভিত্তিতে এই প্রথম অনুষ্ঠিত পৌরসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে । তবে ভোটগ্রহণের সময়ে নানান অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলা , কেন্দ্রদখল ও সহিংসতার খবর ও পাওয়া গেছে।সাতকানিয়ায় গুলিতে ১ জন নিহত হয়েছেন।

হবিগঞ্জে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়ার জন্য পুলিশ ১৮২ রাউন্ড গুলি ছুড়েছে। বরগুনায়ও বিজিবি গুলি ছুড়ে। ৩৮টি কেন্দ্রে ভোট স্থগিত করা হয়েছে। মাধবদীতে নির্বাচন বাতিল করা হয়েছে।

প্রথম খবর আসে যশোর থেকে। সকাল ৮টার সময় যশোর সরকারি এসএম কলেজ কেন্দ্রে ভোটাররা দেখতে পান পুরো বাক্স বোঝাই ব্যালটে। প্রতিবাদ জানালে আমলেই নেননি প্রিজাইডিং অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান। ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার এক ঘণ্টা আগে অর্থাৎ বিকেল তিনটার দিকে ভোট গণনা শুরু করে দেন প্রিজাইডিং অফিসার। ভয়েস অব আমেরিকাকে তিনি বলেন, ঢাকার অদূরে বাংলার এককালের রাজধানী-খ্যাত সোনারগাঁওয়ে গিয়েছিলাম ভোটের চিত্র দেখতে। লম্বা লাইন, কিন্তু এগুচ্ছে না। এর মধ্যে মহিলা ভোটার বেশি। প্রায় তিন ঘণ্টা দাঁড়িয়ে রয়েছেন মনিরা বেগম। পানাম ভোট কেন্দ্রে দুপুর সোয়া বারোটায় এই চিত্র পাল্টে গেল। ককটেল বিস্ফোরণ, গুলি, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার মধ্যে কেন্দ্রও দখল হয়ে গেল। হাঙ্গামায় ওসিসহ ১৫ জন আহত হন।
সারা দেশ থেকে যে খবরা-খবর আসছে তাতে ভোটের চিত্র ছিল মোটামুটি একই। ঢাকা থেকে মতিউর রহমান।

XS
SM
MD
LG