অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশে টঙ্গীর কারখানায় উদ্ধারকাজে অংশ নিয়েছে সেনাবাহিনী


বাংলাদেশে টঙ্গীর যে কারখানায় বিস্ফোরন ও অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছিল শনিবার, সেই কারখানায় উদ্ধারকাজে অংশ নিয়েছে সেনাবাহিনী।

সোমবার সকাল থেকেই ধসে যাওয়া মূলভবনসহ আরও ২টি ধসে যাওয়া ভবনে উদ্ধারকাজ শুরু করা হয়।

সেনাবাহিনীর কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, উদ্ধারকাজ শেষ না হওয়া অব্দি চলবে লাগাতার। তবে সময় লাগবে ধ্বংসস্তুপ সরাতে। তারা জানান, কারখানার ভেতরে থাকা ঝুঁকিপূর্ণ, দাহ্য ইথানলসহ প্রচুর রাসায়নিক দ্রব্যাদি রয়েছে-যা সরাতে হবে বিশেষ প্রক্রিয়া ও পদ্ধতিতে।

ধ্বংসস্তুপ থেকে সোমবার আরও ৪টি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আর এই নিয়ে এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৩ জনে।

রোববার রাতে উদ্ধার করা মরদেহগুলো বিকৃত হয়ে গেছে- যা দেখে সনাক্ত করার কোন উপায় নেই বলে নিখোঁজ হওয়াদের একজনের স্বজন বললেন, ডিএনএ'র জন্য অপেক্ষা করতে হবে।
নিখোঁজদের এখনও খুঁজে ফিরছেন স্বজনরা। চোখে বিষাদ আর হাতে প্রিয়জনের ছবি নিয়ে তারা সময় পার করছেন গভীর উৎকণ্ঠায়।
বিস্ফোরণের ঘটনায় কারখানার মালিকসহ ৭ জনকে আসামী করে মামলা করেছেন একজন নিহতের বাবা। ঢাকা থেকে আমীর খসরু।

XS
SM
MD
LG