অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দেশে ফিরলেন মুসা ইবনে ইয়াকুব। ফরাসি এই এনজিও কর্মী ৭০ দিন বাংলাদেশের কারাগারে আটক ছিলেন। রোববার ফ্রান্সে পৌঁছানোর পর তাকে বিপুল সংবর্ধনা দেয় ফরাসিরা। ফ্রান্স টুয়েন্টি ফোর-এর খবরে বলা হয়, মুসা শুধু ৭০ দিন আটক ছিলেন তাই নয়, মুক্ত হওয়ার পরও ৪ মাস বাংলাদেশ ছাড়ার অনুমতি দেয়া হয়নি তাকে। ২৮ বছর বয়সী মুসা ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে ফরাসি এনজিও বারাকসিটির একটি মিশনে বাংলাদেশে যান। এ মিশনে মুসার লক্ষ্য ছিল রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে সাহায্য করা।
২২শে ডিসেম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যাওয়ার সময় ‘সন্দেহজনক কর্মকান্ডের’ অভিযোগে আটক হন মুসা। বার্তা সংস্থা এএফপির খবর অনুযায়ী, মুসার পাসপোর্টের নাম ও ব্যবহৃত মুসলিম নামের সঙ্গে অসঙ্গতি নিয়ে উদ্বেগ ছিল কর্তৃপক্ষের। প্রসঙ্গত, মুসার নাম ছিল ম্যাক্সিম পুয়েমো চ্যানচুইং। ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পর তিনি মুসা ইবনে ইয়াকুব নাম গ্রহণ করেন।
গ্রেপ্তার হওয়ার পর দু’মাসেরও বেশি সময় কারাগারে মানবেতর পরিস্থিতিতে কাটে মুসার। বারাকসিটি টুইটারে একটি অডিও রেকর্ডিং প্রকাশ করেছিল যেখানে মুসা উল্লেখ করেন, প্রথমে ছোট্ট একটি সেলে আরও ৪০ বন্দির সঙ্গে ঠাসাঠাসি করে রাখা হয়েছিল তাকে। পরে তাকে ‘নির্জন কারাবাসে’ সরিয়ে নেয়া হয়। পরে তাকে মুক্তি দেয়া হলেও দেশ ছাড়ার অনুমতি দেয়া হয়নি। জুলাই মাসের শেষে বাংলাদেশ মূসার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ প্রত্যাহার করে নেয়।
উল্লেখ্য যে, মুসার মুক্তির জন্য ফরাসি সরকার সর্বতোভাবে চেষ্টা চালায়।
এ সম্পর্কে লন্ডন থেকে মতিউর রহমান চৌধুরীর রিপোর্ট।

XS
SM
MD
LG