অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

হ্যালো ওয়াশিংটন :বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়ন এবং বাস্তবে নারীর সামাজিক মর্যাদা


আপনাদের জিজ্ঞাসা এবং আমাদের অতিথী প্যানেলিস্টদের আজকের কল ইন শো, হ্যালো ওয়াশিংটনের বিষয় হচ্ছে বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়ন এবং বাস্তবে নারীর সামাজিক মর্যাদা ।

আজ আমাদের অতিথীরা হচ্ছেন, ট্রান্সপ্যারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের চেয়ারপারসন , আইন ও শালিস কেন্দ্রের নিবাহী পরিচালক এবং বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল ।

অতিথী প্যানেলে আরও রয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞানের অধ্যাপক, বিশিষ্ট গবেষক ড নেহাল করিম ।

রয়েছেন , ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগের অধ্যাপক , লেখিকা এবং মানবাধিকার বিষয়ক কর্মী ড কাবেরী গায়েন।

আজকের যে বিষয় বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়ন এবং বাস্তবে নারীর সামাজিক মর্যাদা তাতে নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশের লক্ষ্যযোগ্য সাফল্যের পাশাপাশি নারীর সামাজিক মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় যে বড় রকমের স্খলন রয়ে গেছে সেই বিষয়টি আমরা বোঝার চেষ্টা করবো। বাঙালির প্রাণের উতসব , বাংলা বর্ষবরণের দিনেই , নারীর প্রতি অমর্যাদা প্রদর্শনের যে জঘন্যতম ঘটনা ঘটলো , তারই প্রেক্ষাপটে সম্ভবত এ দাবি ক্রমশই জোরদার হচ্ছে যে নারীর মর্যাদা একটা সামূহিক ব্যাপার হওয়া উচিত, ক্ষমতায়ন শব্দটির আরও ব্যাপক প্রতিফলন দরকার। প্রশ্ন উঠছে যারা নারীদের লাঞ্ছনা করেছে , তাদের শাস্তি বিধান নিশ্চিত করা এবং আরও একটা জিজ্ঞাসা মানুষের মনে এসছে যে বাঙালির এই সর্ববৃহত অনুষ্ঠানে এই হামলা কারা চালিয়েছে, দু রকম অভিযোগ আসছে , কেউ বলছেন রাজনৈতিক ক্ষমতার অধিকারী কোন ছাত্র সংগঠনের সদস্যরা কি এর জন্যে দায়ী নাকি রমনার বটমূলে যারা বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিল আজ থেকে কয়ক বছর আগে , তাদেরই উত্তরসূরিরা বাঙালী জাতীয়তাবোধের এই স্রোত রুখতে , নারীদের এ ধরণের অনুষ্ঠানে যোগদানে বিরত রাখতে এই অপকর্ম ঘটিয়েছে কীনা

বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষ । সেই সঙ্গে বলা হচ্ছে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার ঊর্ধ্বে উঠে পারিবারিক পরিবেশের , সাংস্কৃতিক মূল্যবোধের মাধ্যমে এই রকম ঘটনা নিবারণ করা সম্ভব । এ সব কিছর উপরই এখন আলোকপাত করা হচ্ছে আজকের কল ইন শো , হ্যালো ওয়াশিংটনে

XS
SM
MD
LG