অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আমার দেশ-এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে নিয়ে সি পি জে‘র বক্তব্য


বাংলাদেশে চলতি রাজনৈতিক সংকটের মধ্যে সাংবাদিকদের ধরপাকড়, হয়রানির বিষয়ে নিউইয়র্কভিত্তিক কমিটি টু প্রটেক্ট জর্ণালিস্টস সংস্থা উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। সংস্থার এশিয়া বিষয়ক সমন্বয়কারী বব দিচ বলেছেন, বাংলাদেশ সরকারকে অবশ্যই সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে হবে।
টেলিফোনে তার সঙ্গে কথা বলেছেন রোকেয়া হায়দার
বাংলাদেশে বর্তমানে যে রাজনৈতিক গোলযোগ অসন্তোষ চলছে, তার শিকার হচ্ছেন সাংবাদিকরা। সরকারের সমালোচনা অথবা বিরোধী কোন মন্তব্য প্রকাশের ফলে সাংবাদিকদের হয়রানির খবর পাওয়া যাচ্ছে। কিছুদিন আগে আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে আটক করা হয়েছে। পরে অন্য ছাপাখানা থেকে আমার দেশের কয়েকটি কপি ছাপার চেষ্টা করা হলে, তা বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ প্রসঙ্গে কমিটি টু প্রটেক্ট জর্ণালিস্টের এশিয়া সমন্বয়ক বব দিচ বলেন, ‘আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে বাংলাদেশে এই পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছি। এই ঘটনাকে ঘিরে যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে, তা বেড়ে চলেছে তবে পত্রিকা বন্ধ করে দেওয়ার কোন যুক্তি আমরা খুঁজে পাই না। সরকার এতে যতই ক্ষুব্ধ হোন কেন, যতই বিরোধ থাকুক না কেন। তিনি বলেন, সরকারকে উপলব্ধি করতে হবে যে তাদের সংবাদ মাধ্যমকে স্বাধীনভাবে কাজ করার সুযোগ দিতে হবে। রাজনৈতিক পরিস্থিতি যেমনই হোক না কেন।
সি পি জে কর্মকর্তা বলেন, যে দেশে সরকার দাবী করেন যে সংবাদপত্রের স্বাধীনতা আছে, সেখানে পত্রিকার বন্ধ করে দেওয়া বা ওই ধরণের কোন ব্যবস্থা কার্যকর হতে পারে না। বব দিচ বলেন, ‘এটা কেবল বাংলাদেশের সমস্যা নয়। অনেক দেশেই এই সমস্যা রয়েছে। এবং তা কেবল মুসলিম প্রধান দেশের নয়। খৃষ্টান প্রধান, হিন্দু প্রধান দেশেও অনুরূপ সমস্যা আছে, বিভিন্ন দেশে রয়েছে। এবং আমরা বারবার যা দেখি, তা হলো আপনি যদি তা নিরস্ত করতে চান, বিরোধীতা বন্ধ করতে চান, তা হলে সেটা আরও বেড়ে যায়। এর কোন সমাধান নেই। আর বাংলাদেশে সেটাই ঘটছে’।
সিপিজের বক্তব্য হচ্ছে – আইন প্রবর্তন করতে হবে। সকল পক্ষকে আলোচনার মাধ্যমে বিতর্কের সুরাহা করতে হবে। ধীরে ধীরে সবাইকেই তা শিখতে হবে উপলব্ধি করতে হবে। বাংলাদেশে কয়েক দশক ধরে এই ধরণের পরিস্থিতির উদ্ভব হতে দেখা গেছে, তার কোন সমাধান হয়নি। সিপিজের ভাষ্যে, সরকারকেই এ ক্ষেত্রে অগ্রণী ভুমিকা গ্রহণ করতে হবে।CPJ ON BD
XS
SM
MD
LG