অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভূমিধ্বসের কারণে ভারতের ভূমিকম্প উপদ্রুত এলাকায় উদ্ধার কাজ ব্যাহত


ভূমিধ্বসের কারণে ভারতের ভূমিকম্প উপদ্রুত এলাকায় উদ্ধার কাজ ব্যাহত

ভূমিধ্বসের কারণে ভারতের ভূমিকম্প উপদ্রুত এলাকায় উদ্ধার কাজ ব্যাহত

ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চেলে ভুমিকম্প উপদ্রুত এলাকায় ভুমি ধ্বস ও প্রচন্ড বৃষ্টিপাতের দরুণ উদ্ধার কর্মিরা ভূমিকম্পে প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন , এমন লোকজনের কাছে পৌছুতে পারছেন না । । ভূমিকম্পে ভারত ও পার্শ্ববর্তী দেশগুলিতে অন্তত ৫৬ জন মারা গেছে। ভারতের সিকিম রাজ্যে উদ্ধারকর্মিরা ভূমিকম্পের কারণে নামা ভূমিধ্বসে রাস্তা বন্ধ দেখতে পান। জরুরী কর্মীরা রাস্তা পরিস্কার করে পাশের গ্রামগুলিতে পৌছোনোর আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন। ভারতীয় কর্তৃপক্ষ বিমানের সাহায্যে দূর্গত অঞ্চলে উদ্ধার ও ত্রাণ কর্মিদের পাঠানোর চেষ্টা করে। কিন্তু খুব নীচু থেকে ভেসে যাওয়া মেঘের কারণে হেলিকপ্টার উড়তে পারেনি।

এই ভূমিকম্পের কেন্দ্র ছিল সিকিমের রাজধানী গ্যাংটক থেকে ৬০ কিলোমিটার উত্তর পশ্চিমে , নেপাল-ভারত সীমান্তের কাছাকাছি। ভারতীয় কর্তৃপক্ষ বলছে যে ঐ ভূমিকম্পে কমপক্ষে ৩১ জন সিকিমে এবং ১১ জন বিহার ও পশ্চিম বঙ্গে প্রাণ হারায়। এদের অনেকেই ভবন বিধ্বস্তের কারণে মারা যায়।

এই ভূমিকম্প নেপাল এবং তিব্বতের চীনা এলাকাতেও অনুভব করা হয়। নেপালী কর্তৃপক্ষ ভূমিকম্পের সঙ্গে সম্পৃক্ত সাতটি মৃত্যুর খবর দেন, যার মধ্যে তিন জন মারা যান কাঠমন্ডুর ব্রিটিশ দূতাবাসের দেয়াল ধ্বসে পড়ায়। চীনের সরকারী শিনহুয়া বার্তা সংস্থা বলছে যে কমপক্ষে সাতজন প্রাণ হারায় দক্ষিণ তিব্বতে।

XS
SM
MD
LG