অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মেক্সিকো উপসাগরে তেল নিঃসরণের বিষয়ে ভূতত্ববিদ ডক্টর মোহাম্মদ খালিকুজ্জামানের মূল্যায়ন

  • সরকার কবীরূদ্দীন

এপ্রিলের ২০ তারিখে মেক্সিকো উপসাগরের তলদেশে বিস্ফোরণের মধ্যে দিয়ে তেল কূপের মুখ ভেঙ্গে গলগল ক’রে যে তেল নিঃসরণ শুরূ হয়, আজো তার কোনো সুরাহা হ’লো না – ইতিমধ্যে বিকল্প পন্থায় কিছু কিছু তেল সংগ্রহ ক’রে পানির ওপর ভাসমান দু’টি সংগ্রহ যানে জমা করা সম্ভব হ’য়েছে – ক’দিন আগে এরকম তৃতীয় আরেকটি সংগ্রহ যান যুক্ত করবার কথা ছিলো, মেক্সিকো উপসাগরে গ্রীস্মমন্ডলীয় সামুদ্রিক ঘূর্নী এ্যালেক্সের দাপটে সেটা সম্ভব হয়নি – হ’লে দৈনিক ভাঙ্গা মুখ থেকে ৫৩ হাজার পিপে তেল সংগ্রহ করা যেতো ।

বৃটিশ পেট্রোলিয়াম ব’লছে – দৈনিক নাকি ৬০ হাজার পিপে ক’রে তেল ওখান থেকে বেরূচ্ছে – এই যে তেল সংগ্রহ করা হ’চ্ছে, ভাঙ্গা মুখ থেকে – সেটা কিভাবে সম্ভব হ’চ্ছে সেকথা ব্যাখ্যা ক’রলেন যুক্তরাষ্ট্রের পেনসেলভেনিয়া রাজ্যের লক হেভেন ইউনিভার্সিটির ভূতত্ব বিভাগের অধ্যাপক ডক্টর মোহাম্মদ খালিকুজ্জামান।

প্রফেসার খালিকুজ্জামান ব’ললেন - মেক্সিকো উপসাগরে বুধবারের সামুদ্রিক ঘুর্নী এ্যালেক্সের কারনে তেল-পরিস্কারের কাজে বিঘ্ন ঘ‘টেছে – তেল আটকিয়ে তা পরিস্কার করার লক্ষে সাগরবক্ষে তেল আটকানোর জন্যে দেওয়া ব্যারিয়ার বা প্রতিবন্ধকগুলো যায়গা থেকে হঠে গিয়েছে, তেল অনেকখানি জায়গা জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে – জলজ প্রাণী, সৈকতভুমির প্রাণীজগত – এবং এমনকি আশপাশের প্রকৃতিও দারূন রকম বিপর্যস্ত হ’চ্ছে – এর সুদূরপ্রসারী ফল কি হ’তে পারে তাও এই মুহুর্তে বলা মুশকিল – বলা দুস্কর শেষ পর্যন্ত এই বিপর্যয়ের কূলকিনারা কিভাবে হ’তে পারে ।

সংশ্লষ্ট

XS
SM
MD
LG