অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নারীর সম্পৃক্ততা একান্ত প্রয়োজন : অধ্যাপক সাদেকা হালিম

  • আনিস আহমেদ


সম্প্রতি ঢাকায় বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত নারীরা একটি কর্মশালায় উপস্থিত হয়ে , গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নির্ভয়ে নারীদের সম্পৃক্তির ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক International Foundation for Electoral Systems (IFES)আয়োজিত ঐ আলোচনায় অন্যতম বক্তা ছিলেন বাংলাদেশের তথ্য কমিশনার , ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সাদেকা হালিম । ভয়েস অফ আমেরিকার বাংলা বিভাগের সঙ্গে এক একান্ত সাক্ষাৎকারে ড সাদেকা হালিম বলেন যে ঐ কর্মশালার শিরোনাম ছিল , Women Against Violence in Election. তিনি বলেন যে মোটা দাগে ঐ কর্মশালার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে নারীদের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় পুর্নাঙ্গ ভাবে সম্পৃক্ত করা। এ কথা সত্যিই যে নারীদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধি পেয়েছে কিন্তু লক্ষ্য করার বিষয় যে তারা সামগ্রিক ভাবে নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ত নন। নানান সামািজিক-সাংস্কৃতিক কারণে তারা গণতন্ত্রায়নের এই প্রক্রিয়া থেকে অনেক দূরে অবস্থান করেন ।

নারী স্বাধীনতা বিষয়ে হেফাজতে ইসলামের দৃষ্টিভঙ্গি সম্পর্কে এক প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক সাদেকা হালিম বলেন যে হেফাজতে ইসলামের প্রধান আল্লামা শফি যদি এ কথা বলে থাকেন যে নারীদের উচ্চ শিক্ষার দরকার নেই এবং তাদের ঘরে বন্দী হয়ে থাকলেই চলবে তা হলে এই ধরণের বক্তব্য আসলেই ভয়াবহ কারণ তাঁরা বাংলাদেশের উন্নয়নে নারীর ভূমিকা পুরোপুরি অগ্রাহ্য করছেন । তিনি বলেন যে নারীরা যে বিভিন্ন সেক্টরে কাজ করছেন , তাতে তারা দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখছেন।

ড সাদেকা হালিম , হেফাজতে ইসলামকে একটি রাজনৈতিক দল বলেই মনে করেন এবং বলেন যে এ বারের সিটি কর্পোরেশানগুলোর নির্বাচনের সময়ে তাদের কর্মিরা অত্যন্ত সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছেন । সহজ সরল নারী ভোটদাতাদের নানান রকমের বানোয়াট ছবি দেখানো হয়েছে এবং পবিত্র কোরান শরীফ ধরিয়ে প্রতিজ্ঞা করানো হয়েছে যে তারা যেন উদারপন্থি কাউকে ভোট না দেন। এ সব কিছুর আলোকেই নারী সচেতনতা এবং সক্রিয়তা অত্যন্ত দরকার।

XS
SM
MD
LG