অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আন্তর্জাতিক পরিবেশ দিবস -২০১৬


An Indian student wears facepaint during an awareness rally to mark World Environmental Day in Allahabad.

An Indian student wears facepaint during an awareness rally to mark World Environmental Day in Allahabad.

আন্তর্জাতিক পরিবেশ দিবস -২০১৬।
জলবায়ু পরিবর্তন,বিশ্ব উষ্ণায়ন এই কথাগুলো আজকাল ঘুড়ে ফিরে হাজারো বার আসে । বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে তো বটেই । কিন্তু এই পৃথিবীতে মানুষের বসবাসের জন্য এটা যে কত বড় একটা হুমকি তা কি আমরা উপলব্ধি করতে পারছি ?
পরিবেশ এবং মানুষের মধ্যে রয়েছে নিবিড় সম্পর্ক । প্রতিবছর ৫জুন বিশ্বজুড়ে পালিত হয় আন্তর্জাতিক পরিবেশ দিবস । উদ্দেশ্য পরিবেশের ক্ষতির মাত্রাকে সহনীয় পর্যায়ে রাখা । জলবায়ু বিশেষজ্ঞ আতিকুর রহমান বললেন উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে ক্ষতির সবচেয়ে বড় ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ এবং সাবধান করলেন ধাক্কা আসছে সামনে বাংলাদেশে ।
জীবনধারণের জন্য দরকার খাদ্য আর খাদ্য উৎপাদনের জন্য দরকার উর্বর মাটি । অবস্থা অনুধাবনে শ্রীপুরের বর্জ মেশানো কিছু মাটি পরীক্ষা করে মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইন্সটিটিউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা জানালেন ভয়াবহ চিত্র । কপার,ক্যাডমিয়াম,ক্রোমিয়াম এবং লেডের মত পদার্থ বাংলাদেশের মাটিতে রয়েছে সহনীয় মাত্রার চেয়ে অনেকগুন বেশি।
ঢাকার মানুষেরা বুক ভরে বিশুদ্ধ বাতাস নেয়ার পরিবর্তে উল্টো শিকার হচ্ছেন বায়ুদূষনজণিত রোগের । ২৫% মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন কিডনি রোগ,শ্বাসকষ্ট সহ মারাত্মক সব রোগে বলছিলেন জাতীয় অধ্যাপক ব্রি.জে.(অব)ডা.আব্দুল মালিক । প্রশাসনও কিন্তু বসে নেই । সর্বাত্মক চেষ্টা করছে পরিবেশটাকে বসবাসের উপযোগী করতে,সেরকমই বললেন সিটি মেয়র আনিসুল হক ।
বর্জ্য এবং নির্মান সামগ্রী বহনকারি যান-বাহন সাথে সাথে যেখানে সেখানে ময়লা ফেলা বন্ধে নানা উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।
শুধু সরকারের দায়িত্ব? আমাদের সুস্থতা অনেকাংশে নির্ভর করে আমাদেরই উপর ।
আমরা নিজেরা কোথায় আবর্জনা ফেলছি কিংবা নিজের বাসার সামনে কতটা পরিষ্কার রাখছি সেটাও ভাববার সময় এসেছে।
বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিকর গ্যাস নির্গমন আর প্রচুর পরিমাণ ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ নিষ্কাশনের ফলে দিন দিন পৃথিবীর উষ্ণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে । সেই সঙ্গে পরিবর্তিত হচ্ছে পৃথিবীর বায়ুমন্ডল এবং জলবায়ু । যার ফলাফল স্বরূপ সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি পাচ্ছে । অদূর ভবিষ্যতে সম্পূর্ণ তলিয়ে যেতে পারে ভারতের পূর্বাঞ্চলের বেশ কিছুটা জায়গা সাথে বাংলাদেশ, মালদ্বীপ আর শ্রীলংকাসহ পৃথিবীর নিম্নভূমির দেশসমূহ । যার যত টুকু সাধ্য তত টুকু দিয়েই চেষ্টা করা দরকার পৃথিবীটাকে বাসযোগ্য রাখার । আমাদের সাধ্যের মধ্যে আছে এমন অনেক বিষয়ই রয়েছে । যেমন-১) গাছপালা নিধন না করা আর অন্যকে নিধনে নিরুৎসাহিত করা এবং নিজে বেশি করে গাছ লাগানো আর অন্যকে গাছ লাগানোয় উৎসাহিত করা । ২) গাড়ির ক্ষতিকর/ কালো ধোঁয়া বন্ধ রাখার চেষ্ঠা করা এবং অন্যকে এ ব্যাপারে সচেতন করা । ৩) পাহাড় কাটা বন্ধ রাখা এবং এ ব্যাপারে সবাইকে সচেতন করা । ৪) ময়লা আবর্জনা যত্রতত্র না ফেলা এবং বর্জ্য পদার্থ যেখানে সেখানে নিস্কাশিত না করা । ৫) বাড়ির ফ্রিজটি সময় সময় সার্ভিসিং করিয়ে নেওয়া । এ রকম আরও অনেক বিষয় যা পরিবেশ/পৃথিবীর জন্য ক্ষতিকর সেগুলো বন্ধ করা বা বন্ধ করার জন্য জনগণকে সচেতন করার শপথ নেওয়ার অনুপ্রেরণা দেয় এই দিনটি ।

শরীফ উল হক,
ঢাকা রিপোর্টিং সেন্টার।
সহযোগিতায়- ইউএসএআইডি এবং ভয়েস অব আমেরিকা।
প্রযোজনায়-রেডিও টুডে প্রাইভেট লিমিটেড।

XS
SM
MD
LG