অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস ২০১৫: নারী ও শিশু সবার আগে বিপদে-দুর্যোগে প্রাধাণ্য পাবে


আঙ্গুর নাহার মন্টি

ঢাকা রিপোর্টিং সেন্টার

সহযোগিতায় - ইউএসএআইডি ও ভয়েস অফ আমেরিকা

১১ জুলাই বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস। ১৯৮৭ সালের এই দিনে বিশ্বের জনসংখ্যা ৫০০ কোটিতে উন্নীত হয়। এর ফলে ইউএনডিপি’র গভর্ন্যান্স কাউন্সিল প্রতিবছর দিনটিকে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস হিসেবে পালন করার প্রস্তাব করে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ১৯৯০ সালে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে বিশ্বজুড়ে দিবসটি পালনের সিদ্ধান্ত হয়। দিবসটি পালনের উদ্দেশ্য হচ্ছে, জনসংখ্যা বিষয়ক সমস্যাগুলো সকলকে জানানো এবং তা গুরুত্ব দিয়ে সমাধান করা। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো এবারও বাংলাদেশ দিবসটি পালন করছে।

নগরায়ন, বন কাটা, জলবায়ুর পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাবের কারণে বৈশ্বিক উষ্ণতা বাড়ছেই। ফলে বাড়ছে প্রাকৃতিক দুযোর্গও। সেইসাথে বিশ্বজুড়ে জাতিগত দ্বন্দ্ব ও সহিংসতাসহ নানা কারণে বাস্তুচ্যুতি ও জোরপূর্বক অভিবাসন তো রয়েছেই। এসব দুর্যোগ ও দ্বন্দ্বে নারী ও শিশুরা সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় থাকে। তাই এবার বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘নারী ও শিশু সবার আগে, বিপদে-দুর্যোগে প্রাধাণ্য পাবে’।

দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য প্রসঙ্গে জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিলের (ইউএনএফপিএ) বাংলাদেশ প্রতিনিধি আর্জেন্টিনা মাতাভেল পিকিন বলেন, এবারের থিম হচ্ছে “Vulnerable population in Emergency”। এই প্রতিপাদ্য নির্ধারণের কারণ হচ্ছে, দুযোর্গ বাড়ছে উদ্বেগজনকভাবে। ২০১৪ সালেও বিগত বছরের তুলনায় দুযোর্গ বেড়েছে ৩১ শতাংশ। এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে এর ফলে ৯ মিলিয়ন মানুষ বাস্তুহারা হয়েছে। আর সারা বিশ্বে এই সংখ্যা ৬০ মিলিয়ন।

বাংলাদেশের মতো দেশগুলোতে দুর্যোগ পরিস্থিতিতে নারী ও শিশুর কথা সবার আগে ভাবতে হবে এমন মন্তব্য করে মাতাভেল বলেন, বাংলাদেশ শুধুই জনসংখ্যাবহুল দেশই, বরং বিশ্বে ৫ম দুযোর্গপূর্ণ দেশও। এখানে যে কোন সময় যে কোন দুযোর্গ দেখা দিতে পারে। বন্যা, জ্বলোচ্ছাসের সঙ্গে এখন ভূমিকম্পও যুক্ত হয়েছে। এই অনিশ্চিত দুযোর্গ মোকাবেলায় বাংলাদেশেও পূর্ব প্রস্তুতি থাকা গুরুত্বপূর্ণ। আর এক্ষেত্রে ঝুকিঁপূর্ণ জনগোষ্ঠী কারা সেটিও চিহ্নিত করা জরুরি।

বর্তমানে বাংলাদেশের জনসংখ্যা প্রায় ১৭ কোটি। ২০৫০ সালে তা বেড়ে প্রায় ২২ কোটিতে দাঁড়াবে। গত ৪০ বছরে দেশের জনসংখ্যা বেড়েছে প্রায় তিনগুন। ছোট্ট একটি দেশে এই বহুল জনসংখ্যা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। তবে এই বর্ধিত জনগোষ্ঠীকে জনশক্তিতে রূপান্তরিত করার সুপরিকল্পিত উদ্যোগই পারে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে।


XS
SM
MD
LG