অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মুবারকের পদত্যাগের দাবি ক্রমশই আরও জোরালো হচ্ছে


মিশরের তাহরির বা মুক্তি চত্বরে লক্ষ লোকের সমাবেশ

মিশরের তাহরির বা মুক্তি চত্বরে লক্ষ লোকের সমাবেশ

কায়রোর কেন্দ্রস্থলে সমবেত বিশাল জনতা মিশরের প্রেসিডেন্ট হোসনে মুবারকের পদত্যাগের দাবি অব্যাহত রেখেছে। আজ মঙ্গলবার সারা দিন জুড়ে কায়রোর তাহরির স্কোয়ারে মানুষ পায়ে হেঁটে সমবেত হয়। এদের মধ্যে বহু মহিলা ও ছিলেন , তারা সেখানে শিশুদের ও নিয়ে আসেন।

জনতার আত্মবিশ্বাস আরও বেড়ে যায় যখন সেনাবাহিনী , তাদের এক সরকারী বিবৃতিতে এই বিক্ষোভ সমাবেশকে বৈধ বলে অভিহিত করে এবং তারা বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালাবে না বলে প্রতিশ্রুতি প্রদান করে। সেনা হিলিকপ্টরে করে যে প্রচারপত্র ছাড়া হয় সেখানে ও বিক্ষোভকারীদের শান্তিপূর্ণ উপায়ে প্রতিবাদ জানাতে বলা হয়।

বিক্ষোভকারীদের বার্তা ছিল একেবারে দ্বর্থহীন এবং সে দেশে পরিবর্তনের ব্যাপারে তাদের আশা ক্রমশই বাড়ছে যেখানে এক ব্যক্তিই গত ৩০ বছর ধরে এক নাগাড়ে শাসন চালিয়েছে ।

একজন বিক্ষোভকারী বলছিলেন , আমরা এই পদ্ধতিটা বদলাতে চাই । সেনাবাহিনী নিশ্চয়ই আমাদের সঙ্গে আছে , তারা আমাদের বিরুদ্ধে নেই।

মিশরের জনগণের কাছে সেনাবাহিনীর একটি মর্যাদাপুর্ণ স্থান আছে এবং এর অন্যতম একটি কারণ হচ্ছে যে নিজেদের জনগণের ওপর আক্রমণ চালানোর কোন ইতিহাস তাদের নেই।

এ দিকে বিক্ষোভকারীদের রাজধানীতে প্রবেশে বিঘ্ন সৃষ্টি করার লক্ষে সরকার ট্রেন চলাচল আগেই বন্ধ করে দেয় এবং ইন্টারনেট পরিষেবা , সেই এক সপ্তা আগে যখন বিক্ষোভ শুরু হয় , তখন থেকেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। গত সপ্তার সংঘাতের পর , আজকের এই সরকার বিরোধী বিক্ষোভ ছিল শান্তিপূর্ণ।

একটা বড় প্রশ্ন এখন ও রয়ে গেছে যে যদি এবং যখন প্রেসিডেন্ট মুবারক ক্ষমতা ত্যাগ করেন , তা হলে মিশর ঠিক কি ধরণের রাষ্ট্র হবে। বিরোধীদের মধ্যে এ নিয়ে এরই মধ্যে মতভেদ রয়েছে যে মিশর গণতান্ত্রিক সংস্কার সাধন করবে না কি শেষ পর্যন্ত একটি ইসলামপন্থি রাষ্ট্রে পরিণত হবে ? এরই মধ্যে মি মুবারকের সমর্থনেও পৃথক এক সমাবেশে শত শত লোক সমবেত হয়। তারা কায়রোর রাস্তায় দেওয়া সাক্ষাৎকারে মুবারককে ক্ষমতায় বহাল থাকতে বলে।

XS
SM
MD
LG