অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আশ্রয় প্রার্থীদের নিয়ে কি করা যায় সে প্রশ্নে ভিন্ন ভিন্ন মতের প্রকাশ ঘটিয়েছে ইউ দেশগুলো


য়ুরোপিয় য়ুনিয়ন নেতৃবৃন্দ সমবেত হন ব্রাসেলসে-২৮টি য়ুরোপিয় য়ুনিয়নভুক্ত দেশ এক লক্ষ বিশ হাজার অভিবাসি কিভাবে ভাগ করে নেবে তারা, সম্মত সে পরিকল্পনার পরবর্তী পদক্ষেপ আলোচনার জন্যে।

তবে, য়ুরোপিয় য়ুনিয়নভুক্ত দেশগুলো হাজার হাজার যে অভিবাসি দলে দলে য়ুরোপে গিয়ে উপস্থিত হচ্ছেন সেই আশ্রয় প্রার্থীদের নিয়ে কি করা যায় সে প্রশ্নে ভিন্ন ভিন্ন মতের প্রকাশ ঘটিয়েছে।যদিও আগের দিন, মঙ্গলবার- স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীদের বৈঠকে ২৮টি দেশের মধ্যে এক লক্ষ বিশ হাজার অভিবাসির কোটা ভিত্তিতে বন্টনের একটি পরিকল্পনা গৃহিত হয়েছিলো।

কোটা প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দিয়েছিলো যে চারটি দেশ তারই একটি স্লোভাকিয়া- বলেছে, কোনো শরনার্থীই তারা নেবেনা,বরং ঐ কোটা প্রস্তাবের বিরুদ্ধে তারা মামলা দায়ের করবে।হাঙ্গেরীর প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর ওরবান কোটা পরিকল্পনা সমর্থন করার দায়ে অভিযুক্ত করেন জার্মানীর চান্সেলার এ্যাঙ্গেলা মার্কেলকে- এটাকে তিনি নীতির নাম ভাঙ্গানো সাম্রাজ্যবাদ বলে আখ্যায়িত করেন।কোটা প্রস্তাবের আরেক বিরোধী দেশ রোমানিয়া বলছে ঐ কোটা প্রস্তাবে যেমনটি বলা রয়েছে সেইমতো চব্বিশ শ’ শরনার্থীকে নেবে তারা।পোল্যান্ডও প্রথমে কোটার বিরোধিতা করেছিলো, তবে এখন বলছে- আগে যে দু’ হাজার জনকে নিতে তারা রাজি হয়েছিলো সেটা ছাড়া আরো পাঁচ হাজার অভিবাসিকে নিতে তারা প্রস্তুত রয়েছে।

পোল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট ব্রোনিস্লাভ কোমোরোভস্কি বলেছেন- কতোজন, সমস্যা সে সংখ্যা নিয়ে নয়—সমস্যা হলো কিভাবে,সে জিজ্ঞাসা নিয়ে।

XS
SM
MD
LG