অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলা গানের বিবর্তন নিয়ে আমাদের এই সাপ্তাহিক আয়োজনের চতুর্থ পর্ব

  • আনিস আহমেদ

বাংলা গানের বিবর্তন নিয়ে আমাদের এই সাপ্তাহিক আয়োজনের চতুর্থ পর্ব

বাংলা গানের বিবর্তন নিয়ে আমাদের এই সাপ্তাহিক আয়োজনের চতুর্থ পর্ব

আমরা গত শতাব্দির একজন প্রখ্যাত শিল্পি কে মল্লিকের কথা কে মল্লিকের নামই , কাসেম মল্লিক। তবে তিনি যেহেতু অনেক শ্যামা সঙ্গীত এবং রামপ্রসাদি গান গাইতেন , সেহেতু তিনি পুরো মুসলিম নাম ব্যবহার করতেন না । অধিক পরিচিত ছিলেন কে মল্লিক নামেই। তালাত মাহমুদও এক সময়ে , তপন কুমার নামে গাইতেন । সেটা অবশ্য আরো পরে , ১৯৪০ এর দশকে । তবে এটাও ঠিক কথা যে তালাত মাহমুদ পরের দিকে গান গেয়েছেন , তালাত মাহমুদ নামে।

তবে আরও আগের সময়ের কে মল্লিক অনেকগুলো নজরুল গীতি ও গান।

আর ঐ নজরুল গীতিগুলির মধ্যে অনেকগুলোই ছিল শ্যামা সঙ্গীত। আঙ্গুর বালা, ইন্দু বালা ‘র সঙ্গে কে মল্লিক ১৯২৯ থেকে ১৯৩৬ এর মধ্যে বেশ অনেকগুলো গান রেকর্ড করেন। ঐ সময়ে কে মল্লিক , কাজী নজরুল ইসলামের কথা ও সুরে ৬টি গান রেকর্ড করেন।

এই অনুষ্ঠানে আমরা শোনাচ্ছি এর ও আগে বাণীবদ্ধ একটি গান , যত দিন যায় , তত কাজ বাড়ে।

এই গানে এক রকমের আধ্যাত্মিক অনুভূতির পরিচয় পাওয়া যায় । এটা ঠিক শ্যামা সঙ্গীতের মতো ঐ রকম ধর্মীয় সঙ্গীত নয়, সেখানে আনুগত্যটা স্পষ্ট নয় কিন্তু, ইংরেজিতে যাকে বলে Lamentation সেই রকম এক ধরণের দুঃখের , আপসোসের ব্যাপারে রয়েছে।

আর লক্ষ্য করার ব্যাপারটা হচেছ , একটা মানুষের জন্যে সময় যে ক্রমশই বহমান সেই ব্যপারটাকে তিনি তুলে ধরেছেন ।

বাংলা গানের ওপর ধারাবাহিক আয়োজনের এই চতুর্থ সঙ্কলন শেষ করছি ১৯১৬ সালে রেকর্ড করা, মানদা সুন্দরী দাসীর গাওয়া একটি গান দিয়ে।

XS
SM
MD
LG