অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

তিস্তা প্রকল্পের সূচনা ও এর অগ্রগতি

  • গৌতম গুপ্ত

তিস্তা নদীর জল বন্টন নিয়ে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যেকার চুক্তি থমকে গেছে পশ্চিম বঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের আপত্তির কারনে । এ চুক্তি না হওয়ায় বিতর্কের ঝড় উঠেছে । মূখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য ভারেতের কেন্দ্রীয় সরকার বাংলাদেশকে যে জল দিতে চেয়েছে তার পর আর বাকি জল দিয়ে উত্তর বঙ্গের তিস্তা সেচ প্রকল্পের কাজ চলবে না । এই তিস্তা প্রকল্পের সূচনা হয়েছিলো ১৯৭৫ - ৭৬ সালে । ভাবা হয়েছিলো তিস্তা , মহানন্দা , ডাউক - এ তিন নদীর ওপর তিনটি ব্যারাজ থাকবে । অসংখ্য খাল কেটে তা থেকে সেচের জল সরবরাহ করা হবে । সেচের জল পাবে কুচবিহার, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং, উত্তর ও দক্ষিন দিনাজপুর এবং মালদা - এ ছয় জেলার ৯ লক্ষ ২২ হাজার হেক্টর কৃষি জমি । ইতিমধ্যে ৩৫ বছর পার হয়ে গেলেও প্রকল্পের অগ্রগতি কিন্তু সামান্যই । রাজ্যের সাবেক সেচমন্ত্রী জানান তিন পর্বে প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হবার কথা ছিলো । এদিকে যতোটা কৃষি জমিতে জলসেচের কথা বলা হয়েছিলো তার অনেকখানিই এখন চা বাগানে রূপান্তরিত হয়ে গিয়েছে । অতএব সেখানে আর সেচের প্রয়োজন অতোটা এখন আর নেই । ওদিকে আবার জমি অধিগ্রহন নিয়ে মামলা চলছে অজস্র । এমতাবস্থায় আসলেই জলের প্রয়োজন কতোটা থাকবে সেটাই এখন অনিশ্চিত । অতএবে সূভাষ নস্কর মনে করেন জলের ভাগ নিয়ে দুই প্রতিবেশির এই বিবাদ অনেকটাই অহেতুক - জানাচ্ছেন কলকাতা থেকে গৌতম গুপ্ত ।

XS
SM
MD
LG