অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

অস্ত্র বিরতি টিকে থাকায় গাজা ও ইসরাইল এখন শান্ত


অস্ত্র বিরতিতে ফিলিস্তিনিরা আনন্দ প্রকাশ করছনে

অস্ত্র বিরতিতে ফিলিস্তিনিরা আনন্দ প্রকাশ করছনে

আট দিন ধরে হামাস ও ইসরাইলিদের মধ্যে লড়াইয়ের পর অস্ত্র বিরতি বৃহস্পতিবার ও অটুট ছিল। গাজায় হাজার হাজার লোকজন পতাকা নেড়ে রাস্তায় নেমে আসে তবে ইসরাইলে প্রতিক্রিয়াটা ছিল অনেকখানি সংযত।

মিশরের মধ্যস্থতায় অস্ত্র বিরতি কার্যকর হবার কারণে রাতভর পরিস্থিতি তুলনামূলক ভাবে শান্ত ছিল। গাজায় হামাস প্রধানমন্ত্রী অস্ত্র বিরতির প্রতি মর্যাদা প্রদর্শনের জন্যে বিভিন্ন জঙ্গি গোষ্ঠির প্রশংসা করেন।

ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতেনইয়াহু বলেছেন যে তাঁর সরকার এই অস্ত্র সংবরণকে সুযোগ দিচ্ছেন কিন্তু এটি ভেঙ্গে পড়লে ইসরাইল সে জন্যে প্রস্তুত আছে। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে ইসরাইলের দক্ষিনাঞ্চলে স্কুল বন্ধ ছিল।

গত ২৪ ঘন্টা ধরে ইসরাইল ও হামাস জঙ্গিদের মধ্যে শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি বজায় তাকায় গাজার সীমান্ত এলাকা খুলে দেওয়া হবে এবং লোকজন ও পন্য আদান প্রদান চলবে। মিশরের মধ্যস্থতায় এই শান্তিচুক্তিটি বুধবার স্থানীয় সময়ে রাত ন টা থেকে কার্যকর হয়। মিশরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ কামেল আমর কায়রোতে এই অস্ত্র সংবরণের ঘোষণা দেন। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন এই ঘোষণার সময়ে তার পাশে ছিলেন।

হিলারি ক্লিন্টন বলছেন যে এই অঞ্চলের লোকজনের অধিকার আছে শঙ্কা ও সহিংসতা থেকে মুক্ত থেকে বসবাস করার। আর এই সমঝোতা হচ্ছে সঠিক দিকেই এগিয়ে যাওয়ার পথ আর একেই আমাদের আরও এগিয়ে নিতে হবে। অস্ত্র বিরতি শুরু হবার পর , গাজার অধিবাসীরা রাস্তায় নেমে আসে এবং আনন্দে কেউ কেউ শূণ্যে গুলি ছুড়ে। পশ্চিম তীরের ফিলিস্তিনি অঞ্চলে, ইসরাইলের সেনাবাহিনী বলেছে যে তারা ৫৫ জন সন্দেহভাজন শীর্ষ স্থানীয় ফিলিস্তিনি জঙ্গিদের গ্রেপ্তার করেছে যারা কীনা বিভিন্ন সশস্ত্র অংশের সদস্য ছিল।

এই অস্ত্র বিরতি যাতে উভয় পক্ষ মেনে চলে সেই বিষয়টির ওপর নজর রেখেছে মিশর।
XS
SM
MD
LG