অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

যুক্তরাষ্ট্রে তৈরী এবং প্রক্রিয়াজাত খাবারে লবনের পরিমান কমাতে চাপ বৃদ্ধি পাচ্ছে ।

  • মাসুমা খাতুন

ডাক্তার এবং পুষ্টি বিশারদদের পরামর্শ দিনে এক চা চামচ অর্থা্ত্ ২৩০০ মিলিগ্রামের বেশী লবন না খেতে । যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞান ও জনস্বাস্থ্য কেন্দ্রের মাইকেল জ্যাকবসন বলেন ‘ লবন সম্ভবতঃ খাবারে সবচেয়ে ক্ষতিকর একটি উপাদান যার দরুন রক্তচাপ বেড়ে যায় ফলে হৃদরোগ, স্ট্রোক ইত্যাদি মারাত্মক রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয় ।’ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্টে প্রকাশ প্রতি বছর হৃদরোগ আর স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে এক কোটি সত্তর লক্ষ্ মানুষ প্রান হারায় । যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওসুধ প্রশাষন যখন তৈরী খাবারে লবনের পরিমানের ওপর নোতুন সীমারেখা আরোপ করবে তা বিভিন্ন খাদ্য বস্তুর লেবেলে দেখাতে এবং কার্যকর করতে সময় লেগে যাবে । খাদ্য ও ওসুধ প্রশাষনের কমিশনার মার্গারেট হ্যামবার্গ বলেন –‘খাদ্য দ্রব্যে লবনের পরিমান কমিয়ে আনতে হবে ক্রমশঃ এবং ধীরে ধীরে, দুটি কারনে – এক হলো ক্রেতাদের রুচি বদলাতে কিছুটা সময় দেয়া, আর দুই – খাদ্য শিল্প তাদের খাবার প্রস্তুত প্রনালী রাতারাতি পাল্টে দিতে পারবেনা । সব খাবার প্রস্তুত কারক প্রতিষ্ঠানকে সময় দিতে হবে । তবে মানুষ ইচ্ছে করলে নিজেরাই নুন খাওয়ার পরিমান কমিয়ে আনতে পারে ।



XS
SM
MD
LG