অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

হ্যালো ওয়াশিংটন : “বাংলাদেশে নৌ দূর্ঘটনা”


আজকের হ্যালো ওয়াশিংটনের আলোচ্য বিষয় ছিল “বাংলাদেশে নৌ দূর্ঘটনা।” ঢাকা থেকে আমাদের সংগে যোগ দিয়েছেন দুজন বিশিষ্ট অতিথি।

প্রফেসার রফিকুল ইসলাম নৌযান ও নৌযন্ত্র কৌশল বিভাগ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকাএবং দৈনিক সংবাদ পত্রিকা, প্রথম আলোর বিশেষ প্রতিনিধি অরুপ দত্ত।

ভাটির দেশ বাংলাদেশ, গ্রীষ্ম মরসুমে এক দিকে হিমালয়ের বরফ গলা ঢল আর অন্য দিকে তিব্বতের খরস্রোতা তাসাংপো নদী থেকে নেমে আসা ব্রক্ষ্মপুত্রের অজস্র জলধা। সেই সংগে ২৩০ টি নদ নদীসহ অসংখ্য শাখা নদী রয়েছে বাংলাদেশে। ১০,০০০ ষ্কোয়ার কিলোমিটারের (১৯৮৯ সালে লাইব্রেইরী অব কংগ্রেসের হিসাবে) বেশি এলাকা জলমগ্ন। বাংলাদেশের ৫৯৬৮ কিলোমিটার নদী পথে সংযুক্ত প্রধান প্রধান শহর বন্দর। সে ক্ষেত্রে নদী পথের গুরুত্ব বাংলাদেশে অপরিসীম।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী বাংলাদেশে প্রায় চার দশকে লঞ্চ ডুবির ঘটনা ঘটেছে প্রায় সাড়ে পাঁচ’শর বেশী এবং প্রাণহানী ঘটেছে সাড়ে চার হাজারের ওপরে। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে এই সংখ্যা আরো অনেক বেশী।

প্রাকৃতিক দূর্যোগ, ঝড়, অতিরিক্ত যাত্রী নেওয়া বা মুনাফা অর্জন, নৌ ডিজাইনে ত্রুটি, অনভিজ্ঞ চালক এই সব কিছু হচ্ছে লঞ্চ ডুবির সাধারণ কারন। এইসব নিয়েই ছিল আজকের হ্যালো ওয়াশিংটন। বিস্তারিত অনুষ্ঠানটি শুনতে ওডিওতে চাপ দিন ঃ

তাহিরা কিব্রিয়া

XS
SM
MD
LG