অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

হ্যালো ওয়াশিংটন : রোহিঙ্গা সমস্যা ও বাংলাদেশ


রোহিঙ্গা সমস্যা ও বাংলাদেশ এ সম্পর্কে আপনাদের জিজ্ঞাসা আর আমাদের জবাবের এই অনুষ্ঠানে আজ অতিথী প্যানেলে রয়েছেন চেয়ারপার্সন ট্রান্সপ্যারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ , নির্বাহী পরিচালক আইন ও শালিশ কেন্দ্র , ট্রাস্টি সদস্য সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ এবং বাংলাদেশে তৎকালীন তত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল। আজ অতিথী প্যানেলে আরও রয়েছেন বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক , রাজনৈতিক বিশ্লেষক , দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকার চট্টগ্রামে সহযোগী সম্পাদক আবুল মোমেন, আর রয়েছেন টেকনাফ অঞ্চলে বেসরকারী সাহায্য সংস্থার প্রাক্তন কর্মী ও সাংবাদিক জাভেদ ইকবাল চৌধুরী ।

বর্মা বা মিয়ানমার থেকে জাতিগোষ্ঠিগত দাঙ্গার কারণে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে চলে আসা, বাংলাদেশের জন্যে বহু বছর ধরে একটা বিরাট সমস্যা হয়ে রয়েছে। ১৯৯১-৯২ সালে বর্মার রাখাইন অঞ্চল থেকে বৈষম্য ও সহিংসতার স্বীকার প্রায় আড়াই লক্ষ রোহিঙ্গা মুসলিম শরনার্থি বাংলাদেশে চলে আসতে বাধ্য হয়। বাংলাদেশ সেই সময়ে প্রচন্ড আর্থ-সামাজিক চাপের স্বীকার হয়। পরে অবশ্য জাতিসংঘের শরনার্থী বিষয়ক হাই কমিশনের উদ্যোগে প্রায় দু লক্ষ ৩৯ হাজার শরনার্থী স্বদেশে ফিরে যেতে সক্ষম হয়। তবে এখন ও বাংলাদেশে বেশ কিছু রোহিঙ্গা শরনার্থি রয়ে গেছেন। এই সব শরনার্থিদের কেউ কেউ সামজিক সমস্যার কারণ হয়েছে বলেও আমরা শুনেছি। এ দিকে রাখাইন প্রদেশে নতুন করে হিংসা হানাহানি শুরু হলে আবারও বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শরনার্থি প্রবেশের চেষ্টা করে। সেই চেষ্টা ঠেকাতে গিয়ে বাংলাদেশ সমালোচনা সম্মুখীন ও হয়েছে এবং সম্প্রতি বাংলাদেশ সরকার ঐ কক্সবাজার এলাকায় বেসরকারী সাহায্য সংস্থার কর্মকান্ড বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়ায় , যুক্তরাষ্ট্র এবং জাতিসংঘ এই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানিয়েছে। এই সব ঘটনার প্রেক্ষাপটেই আমাদের আজকের কল ইন শো।


XS
SM
MD
LG