অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

হংকং-এর প্রধান নির্বাহী, লিউন চুন-ইং, গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভকারীদের সোমবার থেকে রাজপথ ছেড়ে দিতে বলেছেন। বলেছেন, তারা যেসব রাস্তা এবং প্রবেশপথে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেছে সেগুলো সড়িয়ে নিতে হবে।

ওদিকে দ্বিতীয় দিনের মত বিক্ষোভকারী এবং এলাকার অধিবাসীদের মধ্যে সংঘর্ষ অব্যাহত ছিল। এই আন্দোলনের ফলে, এলাকার অধিবাসীদের কাজকর্ম এবং দৈনন্দিন জীবন বিঘ্নিত হলে তারা বিরক্ত হয়ে বিক্ষোভাকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

সংঘর্ষের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে হংকং-এর পুলিশ ১৯জনকে গ্রেফতার করেছে। ওই সংঘর্ষে ১৮জন আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে, যার মধ্যে কয়েকজন পুলিশ কর্মীও রয়েছে। পুলিশ বলছে, সন্দেহ করা হচ্ছে, যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের মধ্যে কয়েকজনের সঙ্গে সুসংগঠিত দুষ্কৃতিদলের সম্পর্ক আছে।

ওদিকে অভিযোগ উঠেছে শহর কর্তৃপক্ষ রাজপথ থেকে বিক্ষোভকারীদের হটানোর জন্যে সুসংগঠিত দুষ্কৃতিকারীদের ব্যবহার করছে। হংকং-এর নিরাপত্তা প্রধান, লাই-তুং কোক সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন, ঐসব অভিযোগ ভিত্তিহীন এবং নিছকই গুজব।

এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে, মূলত ছাত্র বিক্ষোভকারীরা হংকং-এর মহাসড়কগুলো আটকে রেখে বেইজিং-বিরোধী আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। এতে যাতায়াত এবং ব্যবসায়িক কর্মকান্ড ব্যহত হচ্ছে।

XS
SM
MD
LG