অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

হ্যালো ওয়াশিংটন: বাংলাদেশে বিচার ও নির্বাহী বিভাগের পৃথকীকরণ


আজকের হ্যালো ওয়াশিংটনের বিষয় "বাংলাদেশে বিচার ও নির্বাহী বিভাগের পৃথকীকরণ"। আমাদের প্যানেল সদস্যদর মধ্যে ছিলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আইনজ্ঞ, বাংলাদেশের সংবিধান রচয়িতা, প্রাক্তন আইন ও পররাষ্ট্র মন্ত্রী এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ড. কামাল হোসেন। আরও ছিলেন সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য, Transparency International Bangladesh এর চেয়ারপার্সন, আইন ও শালিশ কেন্দ্রের সাবেক নির্বাহী পরিচালক, বিশিষ্ট আইনজীবি ও মানবাধিকার কর্মী সুলতানা কামাল, ছিলেন আইনজীবি ও মানবাধিকার কর্মী দিলরুবা শরমিন।

আজকের এই বিষয়, অর্থাৎ বাংলাদেশে বিচার ও নির্বাহী বিভাগের পৃথকীকরণের প্রয়োজনীয়তা সাম্প্রতিক সময়ে তাত্বিক অর্থে, বিচার ও নির্বাহী বিভাগের পৃথক থাকার ব্যাপারটি, অন্য ভাবে বলা যেতে পারে বিচার বিভাগের স্বাধীনতার বিষয়টি বাংলাদেশে স্বীকৃত কিন্তু প্রয়োগের ক্ষেত্রে এ নিয়ে জিজ্ঞাসা রয়েছে বিস্তর। সম্প্রতি এ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপিত সুরেন্দ্র কুমার সিনহার মধ্যে মতানৈক্য হয়েছে, মতানৈক্য হয়েছে আইনমন্ত্রীর সঙ্গেও, অ্যাটর্নি জেনারেলের সঙ্গেও দ্বিমত হয়েছে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বিষয়ে। এ সব কিছুর আলোকেই আজকের আলোচনা। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেছেন আনিস আহমেদ।

XS
SM
MD
LG