অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আখেরী মোনাজাতের মধ্যে দিয়ে শেষ হ’লো এবারের দু’ই পর্বের বিশ্ব ইজতেমা


ijtema bithi

ijtema bithi

বহুল কাংখিত আখেরী মোনাজাতের মধ্যে দিয়ে শেষ হ’লো এবারের দু’ই পর্বের বিশ্ব ইজতেমা- জানাচ্ছেন ঢাকা থেকে মতিউর রহমান চৌধুরী:

আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে
শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমা
নীরবতা নেমে এসেছে টঙ্গীর তুরাগ তীরে। বহু কাঙ্খিত আখেরি মোনজাতের মাধ্যমে শেষ হয়েছে এবারের দুই পর্বের বিশ্ব ইজতেমা। কড়া নিরাপত্তার মধ্যে বাংলাদেশের ১৬ জেলার মুসল্লি ছাড়াও বিশ্বের অর্ধশত দেশের ৩০-৪০ লাখ মুসল্লি ইজতেমায় অংশ নেন। আখেরি মোনাজাতের সময় ইজতেমা প্রাঙ্গন ঘিরে ১০ বর্গকিলোমিটার এলাকা জনসমুদ্রে পরিণত হয়। বেলা ১১টার কিছু পরে মোনাজাত শুরুর সঙ্গে পুরো ইজতেমা প্রাঙ্গনে পিনপতন নীরবতা নেমে আসে। আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন তাবলীগ জামায়াতের শীর্ষ স্থানীয় মুরব্বী ভারতের মাওলানা সাদ। ২৯ মিনিটের মোনাজাতে মুসলিম জাহানের কল্যাণ কামনা করা হয়। গভীর আবেগপূর্ণ পরিবেশে ‘আমিন, আল্লাহুম্মা আমিন’ ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে ওঠে পুরো ইজতেমা প্রাঙ্গন।

মোনাজাতের আগে বয়ানে মাওলানা সাদ সমবেত মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বলেন, যে সমাজ জাতি বা রাষ্ট্র আলেমদের কদর যত বেশি করবে সে জাতি বা সমাজ তত বেশি সঠিক পথে পরিচালিত হবে। আখেরি মোনাজাত শেষ হওয়ার পর এক সঙ্গে লাখ লাখ মানুষ ফিরতে শুরু করলে সর্বত্র জটের সৃষ্টি হয়। টঙ্গী স্টেশনে অপেক্ষমান ট্রেনগুলোতে উঠতে মুসল্লিদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়। ইজতেমা প্রাঙ্গন থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে কুনিয়া তারগাছ এলাকার বালুরমাঠ থেকে বোমার মতো দেখতে বস্তু উদ্ধার করা হলেও পরে তাতে কোন বিস্ফোরক পাওয়া যায়নি। বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হয়েছিল গত ৮ই জানুয়ারি। ১০ই জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে তা শেষ হয়।
ঢাকা থেকে মতিউর রহমান চৌধুরীর রিপোর্টÑ

XS
SM
MD
LG