অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারত আন্তর্জাতিক দুনিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র বিক্রী করতে পারে


আন্তর্জাতিক দুনিয়ায় ভারত পৌঁছে দিতে চলেছে ব্রাহ্মোস -আকাশ ক্ষেপণাস্ত্রদের। জানা গেছে, ফিলিপিনস, ইন্দোনেশিয়ার মত বেশ কয়েকটি দেশ ব্রাহ্মোস কেনার ব্যাপারে আগ্রহপ্রকাশ করেছে। অতি উচ্চ পর্যায়ের এই ক্ষেপণাস্ত্র ভিয়েতনামকে বিক্রি করতে পদক্ষেপ করেছে নয়াদিল্লি, আরও পনেরো টি আন্তর্জাতিক বাজারে নজর রেখেছে তারা।শব্দের থেকে দ্রুতগামী ব্রাহ্মোস ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্লা দুশো নব্বইটি কিলোমিটার, জল, স্থল যে কোনও জায়গা থেকেই এই ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া সম্ভব, এমনকী সাবমেরিন থেকেও। রুশ- ভারত যৌথ উদ্যোগে তৈরি এই ব্রাহ্মোস বিভিন্ন সহযোগী দেশের কাছে বিক্রি করলে সে সব দেশের প্রতিরক্ষা শক্তি যেমন বাড়বে, তেমনই কোটি কোটি টাকা আসবে ভারতীয় কোষাগারেও। যারা এই ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করে, সেই ব্রাহ্মোস এরোস্পেসকে কেন্দ্রীয় সরকার পাঁচটি রাষ্ট্রকে ব্রাহ্মোস বিক্রির ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করতে নির্দেশ দিয়েছে। তাৎপর্যপূর্ণভাবে এই দেশগুলির মধ্যে সবথেকে আগে রয়েছে ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, চিলি ও ব্রাজিল। এছাড়া তৈরি হয়েছে আরও এগারোটি দেশের দ্বিতীয় একটি তালিকা, যারা ব্রাহ্মোস কিনতে আগ্রহী কিন্তু এব্যাপারে আরও আলোচনা প্রয়োজন। এই দেশগুলির মধ্যে রয়েছে ফিলিপিনস, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড ও সংযুক্ত আরব আমীরশাহি।
ভিয়েতনামের সঙ্গে প্রতিরক্ষাগত সম্পর্ক উন্নতিতে চেষ্টারকোনো ত্রুটি রাখতে চায় না নয়াদিল্লি। এব্যাপারেই সমুদ্র পথে দুদেশের সংযোগ বৃদ্ধির ব্যাপারেও কথাবার্তা চলছে। প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পার্রিকর এ ব্যাপারে ভিয়েতনামের বিদেশমন্ত্রীর সঙ্গেইতিমধ্যে এক বৈঠকও সেরেছেন। এ বছরের শেষে ভিয়েতনামকে ব্রাহ্মোস ক্ষেপণাস্ত্র সরবরাহ করে এই সম্পর্ক সুদৃঢ় হবে বলে আশা করছে নয়াদিল্লি। ব্রাহ্মোস সহ একটি যুদ্ধজাহাজ ভিয়েতনামকে বিক্রির প্রস্তাব বিবেচনা করছে তারা। এর ফলে দক্ষিণ চিন সাগরে চিনের বিরুদ্ধে ভিয়েতনামের শক্তি অনেকটা বৃদ্ধি পাবেই বলে মনে করছে দেশের সংশ্লিষ্ট তথ্যভিজ্ঞ মহল।
এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানাচ্ছেন কলকাতা থেকে পরমাশিষ ঘোষ রায়।

XS
SM
MD
LG