অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কলকাতার ডকইয়ার্ডে নির্মীয়মাণ দুই যুদ্ধজাহাজের ভেতর-বাইরের ছবি তুলে পালিয়েছে সন্দেহভাজনরা


ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের অধীনস্থ যুদ্ধজাহাজ নির্মাণকারী সংস্থা গার্ডেনরিচ শিপবিল্ডার্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ার্স বা জিআরএসই এর একটি ডকইয়ার্ডে দুটি নির্মীয়মাণ যুদ্ধজাহাজের ভেতর ও বাইরের ছবি তুলে নিয়ে গেছে কয়েকজন সন্দেহভাজন। কড়া নিরাপত্তার মধ্যেও কিভাবে সন্দেহভাজনরা সেখানে ঢুকে ছবি তুলে চলে গেলো তা নিয়ে চলছে ঘনঘন বৈঠক। কলকাতা থেকে পরমাশিষ ঘোষ রায়ের রিপোর্ট ।

গতকাল ভর দুপুরে কড়া নিরাপত্তার ঘেরাটোপে থাকা এই সংস্থার কলকাতার রাজাবাগান ডকইয়ার্ডে দুটি নির্মীয়মাণ যুদ্ধজাহাজের ভিতরের ও বাইরে ছবি তুলে নিয়ে গেল গঙ্গার অপর প্রান্ত থেকে স্পিডবোটে চেপে আসা কয়েকজন সন্দেহভাজন। কর্মরত শ্রমিকদের কয়েকজন বিষয়টি টের পেয়ে সেই সন্দেহভাজনদের প্রশ্ন করতেই তারা পাল্টা ধমক দিয়ে সেই স্পিডবোট চেপে চম্পট দেয়। কিন্তু তার আগেই তারা তাদের কাজ সেরে ফেলে বলে খবর।

আগামী কুড়ি তারিখ এই যুদ্ধজাহাজ দুটি আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতীয় নৌবাহিনীর হাতে তুলে দেওয়ার কথা রয়েছে জিআরএসই’র।
স্বাভাবিকভাবে আচমকা এই ধরনের ঘটনায় হতভম্ভ হয়ে যায় গোটা জিআরএসই। গোটা কারখানাসহ বন্দর চত্বরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। কারখানা কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি হতচকিত হয়ে পড়ে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সিআইএসএফ। খবর যায় পুলিশেও। সব পক্ষের বড় কর্তারা নিজেদের মধ্যে ঘনঘন বৈঠক করে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার উদ্যোগ নেন। গোয়েন্দা এজেন্সি গুলোকেও দ্রুত ঘটনার কথা জানানো হয়। সিআইএসএফ জওয়ানদের রাজাবাগান ডকইয়ার্ড জুড়ে বাড়তি আরও কয়েকটি জায়গায় নজরদারি চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়।

কিন্তু ভর দুপুরে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীর নজর এড়িয়ে কি করে স্পিডবোট চেপে এসে সন্দেহভাজনরা নির্মীয়মাণ যুদ্ধজাহাজের মধ্যে ঢুকে পড়লো এবং ছবিও তুলে নিয়ে গেল, তা নিয়ে তোলপাড় পড়ে গিয়েছে কলকাতা সহ গোটা রাজ্যে। কলকাতা থেকে পরমাশিষ ঘোষ রায়।

XS
SM
MD
LG