অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জামায়াতের নৃশংসতা কেবল ’৭১ এ নয় , সাম্প্রতিক সহিংসতায় ও লক্ষ্য করা গেছে: আমিরুল ইসলাম

  • আনিস আহমেদ

বাংলাদেশের হাইকোর্ট সম্প্রতি জামায়াতে ইসলামি দলের নিবন্ধন বাতিল করে রায় দিয়েছে। দলটি সম্ভবত এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চতর আদালতে আপিল করবে। এ দিকে যুদ্ধাপরাধ ও মানবতা বিরোধী অপরাধের বিচারের জন্যে গঠিত ট্রাইবুনাল ও তাদের পর্যবেক্ষণে দল হিসেবে একাত্তরে জামায়াতের ভূমিকার সমালোচনা করেছে। এ সব প্রসঙ্গ নিয়েই বাংলাদেশের বিশিষ্ট আইনজীবি ব্যারিস্টার আমিরুল ইসলাম কথা বলেছেন ভয়েস অফ আমেরিকার সঙ্গে ।

ব্যারিস্টার ইসলাম বলেন যে আইনগত এবং সাংবিধানিক উভয় দিক থেকেই জামায়কে ইসলামির গঠনতন্ত্রন সাংঘর্ষিক হওয়ায় তাদের নিবন্ধন বাতিল করা হয়েছে। অবশ্য তারা হাইকোর্টের এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবে। ব্যারিস্টার আমিরুল ইসলাম , যুদ্ধপরাধ ও মানবতা বিরোধী অপরাধের বিচারের জন্যে ট্রাইবুনালের এই পর্যবেক্ষণের সঙ্গে সহমত পোষণ করেন যে সংগঠন হিসেবে জামায়াতে ইসলামির বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ প্রযোজ্য। ব্যারিস্টার ইসলাম স্মরণ করিয়ে দেন যে , ১৯৭১ সালে যেমন তেমনি আজ ও বাংলাদেশের স্থিতিশীলতা নষ্ট করার জন্যে এই সংগঠন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে । ব্যারিস্টার আমিরুল ইসলাম বলেন যে সাম্প্রতিক সময়ে নিরীহ লোকজনকে হত্যা করে , বাস ‘এ মানুষ পুড়িয়ে তারা সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়েছে। তিনি মনে করিয়ে দেন যে বাংলাদেশে ২০০৯ সালে সন্ত্রাস বিরোধী আইন পাশ করা হয়েছে , যা কীনা আন্তর্জাতিক সন্ত্রাস বিরোধী আইনের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ কিন্তু সরকার কেন সেটি প্রয়োগ করছে না , সেটা বলা মুস্কিল।

পাকিস্তানের জামায়াতে ইসলামি দল , বাংলাদেশের জামায়াতে ইসলামি দলের সম্ভাব্য নিষিদ্ধ হবার বিরুদ্ধে যে প্রতিবাদ জানিয়েছে সে সম্পর্কে ব্যারিস্টার আমিরুল ইসলাম বলেন যে এটি হচ্ছে আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করা। তবে তিনি এ কথা ও বলেন যে ধর্মের নামে রাজনীতি করে , জামায়াত বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন চক্রের সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছে।

XS
SM
MD
LG