অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ব্রিটিশ সাংসদের হত্যা এবং ইইউ প্রসঙ্গে বললেন সুজা মাহমুদ


ব্রিটেনের লেবার পার্টির একজন সাংসদ জো কক্স গতকাল নিহত হওয়ায় এ নিয়ে সর্বমহলেই শোকের ছায়া নেমে এসেছে। ব্রিটেনসহ বিভিন্ন দেশের নেতারা এই ঘটনায় হতবাক হয়েছেন। ইউরোপীয় ইউনিয়নে ব্রিটেন থাকবে কী না সে নিয়ে ২৩ শে জুন যে গণভোট হওয়ার কথা , তাতে এই ঘটনার কি প্রভাব পড়তে পারে , সে সব নিয়েই লন্ডনের একজন সাংবাদিক ও সংবাদ বিশ্লেষক সুজা মাহমুদ আনিস আহমেদকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন যদি ও এর আগেও ব্রিটিশ সংসদ সদস্যদের উপর হামলা চালানো হয়েছে কিন্তু এই বারের এই ঘটনাটি তাৎপর্যপূর্ণ । ঘাতক সন্দেহে যাকে ধরা হয়েছে সে ব্রিটেন ফার্স্ট বলে চিৎকার করেছিল হত্যাকান্ডটি ঘটানোর সময়ে। তাতে মনে হতেই পারে যে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে রাজি নয় , সেই রকম একটি গোষ্ঠি ব্রিটেন ফার্স্ট এই হামলার পেছনে থাকতে পারে । কিন্তু গোষ্ঠিটি তাদের সম্পৃক্ততার কথা অস্বীকার করেছে।

তবে মুল কথা হচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকা বা না থাকা নিয়ে ব্রিটেনে যে উত্তেজনা রয়েছে সেটি এ রকম ঘটনায় ইন্ধন যুগিয়ে থাকতে পারে বলে সুজা মাহমুদ মনে করেন। ইউরোপীয় ইউনিয়নে যোগ দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে ব্রিটেনে ক্ষমতাসীন কনজার্ভেটিভ পার্টি

যেমন নিজেদের মধ্যে বিভক্ত তেমনি লেবার পার্টিতেও পরিস্কার দ্বিমত রয়েছে। তিনি মনে করেন যে জো কক্সের হত্যা কান্ডের পর ভোটের ব্যাপারে কিছুটা পরিবর্তন আসতে পারে। সমবেদনা হিসেবেই ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষে বেশি ভোট পড়তে পারে।

XS
SM
MD
LG