অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

এরশাদের অবস্থান দোদুল্যমান : অধ্যাপক ফেরদৌস হোসেন

  • আনিস আহমেদ

বাংলাদেশের রাজনীতিতে প্রধান দুটি দলের সঙ্গে জোট বাঁধা এবং মেরুকরণের বিষয়টি, নির্বাচনের আগে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ । সাম্প্রতিক সময়ের খবরে জাতীয় পার্টির প্রধান সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসেন মোহাম্মদ এরশাদের অবস্থান নিয়ে বেশ কিছু প্রশ্ন উঠছে। বর্তমানে তিনি ক্ষমতাসীন মহাজোটের অংশ হলেও , আগামিতে তাঁর কি অবস্থান হবে সে নিয়ে জল্পনা কল্পনা চলছে প্রচুর। এ সম্পর্কেই , ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক , ড ফেরদৌস হোসেন ভয়েস অফ আমেরিকার সঙ্গে এক একান্ত সাক্ষাৎকারে বলেন যে জেনারেল এরশাদ সম্পর্কে জনমনে এমন একটা ধারণা তৈরি হয়েছে যে তিনি ক্ষমতার কাছে থাকবেন কারণ ক্ষমতার বাইরে অবস্থান করার মতো তার বাস্তব অবস্থা নেই । তবে আওয়ামী লীগ সরকারের শেষ ভাগে এসে যদি এরশাদ সাহেব মনে করেন যে আওয়ামী লীগের পক্ষে আর ক্ষমতায় টিকে থাকা সম্ভব হচ্ছে না বা ভবিষ্যতে আর ক্ষমতায় আসার সুযোগ নেই , শুধু সেই পরিস্থিতিতে এরশাদ সাহেব মহাজোট থেকে বেরিয়ে যাবেন বলে তিনি মনে করেন।

অধ্যাপক ফেরদৌস হোসেন আরও বলেন যে পাঁচ বছর আগেও এরশাদ এবং তাঁর দল যতটা জনপ্রিয় ছিল , এখন ততটা নেই। সুতরাং এরশাদের এই দাবি যে জোটভুক্ত না হয়েও তার দল একাই নির্বাচন লড়বে সেটি বাস্তব বিবর্জিত। এ ক্ষেত্রে তিনি এরশাদের দলীয় প্রার্থিদের সাম্প্রতিক স্থানীয় নির্বাচনে বিপর্যয়ের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন যে তাঁর রাজনীতির দোদুল্যমানতার কারণেই তাঁর ও তাঁর দলের জনপ্রিয়তা অনেক কমে গেছে। অধ্যাপক হোসেন মনে করেন যে আওয়ামী লীগের সঙ্গে জাতীয় পার্টির আদর্শগত মিল ততটা নেই যতটা আছে বিএনপি’র সঙ্গে । তবে আওয়ামী লীগের সঙ্গে জাতীয় পার্টির জোট ছিল কৌশলগত বিষয় , কোন আদর্শিক বিষয় নয়। তিনি বলেন যে হেফাজতের সমাবেশে তাঁর সমর্থন এবং গণজাগরণ মঞ্চ সম্পর্কে তার নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি , জাতীয় পার্টির আদর্শের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ । তিনি আরও বলেন যে আওয়ামী লীগ চাইবে যে ১৮ দলীয় জোট থেকে জামায়াতে ইসলামি বেরিয়ে আসুক এবং বিএনপি চাইবে ১৪ দলীয় জোট থেকে যেন এরশাদের জাতীয় পার্টি বেরিয়ে আসুক। তবে এখন ও এই জোটভুক্ত দলগুলোর চূড়ান্ত অবস্থান বলার সময় আসেনি।

XS
SM
MD
LG