অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পাকিস্তানের সম্ভাব্য নতুন নিরাপত্তা নীতি প্রসঙ্গে মাসকাওয়াথ আহসানের বিশ্লেষণ

  • আনিস আহমেদ

পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী সম্প্রতি এক বক্তব্যে তালিবানসহ উগ্রপন্থিদের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার ব্যাপারে এক ধরণের নীতিমালার রূপরেখা তুলে ধরেছেন। তালিবানদের সঙ্গে একদিকে শান্তি আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি অন্যদিকে তাদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখার এই দিকটি এবং খোদ পাকিস্তানের সরকার ও সমাজের ভেতর উগ্রপন্থিদের বিরুদ্ধে কি রকম ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে , সে সম্পর্কে দ্বিমত রয়েছে বলে যে মনে করা হয় , সে সব বিষয় নিয়ে করাচিতে বিশ্লেষক মাসকাওয়াথ আহসান টেলিফোনে কথা বলেছেন আমাদের সঙ্গে।

তিনি বলেন যে তালিবানের সঙ্গে আলোচনার সুত্রপাত সত্বেও জঙ্গি দমনে পাকিস্তানী কর্তৃপক্ষ যে শক্ত অবস্থানে গেছে তার পেছনে দুটি কারণ আছে, প্রথমত তালিবান পাকিস্তানের সংবিধানের আওতায় আলোচনায় সম্মত নয় , তারা শারিয়া আইন আরোপ করতে চায় এবং পাকিস্তানের সংবিধানকে ইসলাম সম্মত মনে করে না। অতএব এই বিষয়টি স্বভাবতই পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষ মেনে নিতে পারে না। দ্বিতীয়ত , আলোচনা চালিয়ে যাওয়া সত্বে ও সম্প্রতি তেহরিকে তালিবান পাকিস্তানের তরফ থেকে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী সহ নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর যে হামলা চালানো হয়েছে, সেটিও সেনাবাহিনীকে ক্ষুব্ধ করেছে। তা ছাড়া , তালিবান জুন্দুল্লাহ বলে আরেকটি সশস্ত্র গোষ্ঠিকে সহিংসতায় নিয়োজিত করেছে।

মাসকাওয়াথ আহসান এই সাক্ষাৎকারে বলেন যে মূলত সেনাবাহিনী তালিবানকে কোন রকম ছাড় দিতে রাজি নয় এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সেখানকার সেনাপ্রধানের আলোচনার পর এই নিরাপত্তা নীতি তৈরি করা হচ্ছে। তবে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তার দিকে লক্ষ্য রেখেই বলা যায় যে এ সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু হয়ত জানা যাবে না। তিনি বলেন যে পাকিস্তান সরকার এবং পাকিস্তানের সমাজেও তালিবান মোকাবিলার ব্যাপারে দ্বিমত রয়েছে তবে দেশের অধিকাংশ মানুষই জঙ্গিবাদ বিরোধী এবং তারা শান্তি চায়।
XS
SM
MD
LG