অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভবনধ্বসে আহতদের জন্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষকের প্রশংসনীয় উদ্যোগ সম্পর্কে মেহের নিগার

  • আনিস আহমেদ

বাংলাদেশের সাভারে ভূবন ধ্বসে যে বিপুল প্রাণহানি ঘটেছে , তার পাশাপাশি এই দূর্যোগ থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে আড়াই হাজারের ও বেশি লোককে । এদের অনেকেই প্রায় নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন , অনেকেরই অঙ্গ হানি হয়েছে , অনেকেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এই উদ্ধার কাজে এগিয়ে এসছেন সকল শ্রেনীর মানুষ । ত্রাণ তৎপরতায় স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা নিয়েছেন , ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষয়িত্রীরাও । এ প্রসঙ্গেই বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এবং এই ত্রাণটিমের সংগঠক মেহের নিগারের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন , আনিস আহমেদ ।

মেহের নিগার বলেন যে তাৎক্ষনিক ভাবে দুর্গতদের সহায়তা প্রদানের একটি ক্ষুদ্র প্রয়াস হিসেবে বাংলা বিভাগের কিছু ছাত্রছাত্রীকে নিয়ে তাঁরা এই কাজটি শুরু করেন। তারা প্রথমেই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এই সব দূর্গত লোকদের একটি তালিকা প্রস্তুত করেন এবং তাদের কি কি প্রয়োজন তার একটা বিস্তারিত ছক তৈরি করেন। তবে তারও আগে সাভারে ঐ বিধ্বংসী ঘটনা ঘটার পর , প্রয়োজনীয় কিছু জিনিষ তারা সেখানে সরবরাহ করেছেন। সেখানে উপস্থিত ছাত্রছাত্রীদের অভিজ্ঞতার আলোকে পরে তাঁরা এই দুটি হাসপাতালে একরকমের তত্বাবধানের কাজ শুরু করেন। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য বিভাগের শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রী এই উদ্যোগের সঙ্গে সম্পৃক্ত হন।

মেহের নিগার ভয়েস অফ আমেরিকার সঙ্গে এই একান্ত সাক্ষাৎকারে আরও বলেন যে তাঁরা তাৎক্ষনিক , স্বল্পমেয়াদি এবং দীর্ঘমেয়াদি সহায়তা প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। প্রথমেই তাঁরা হাসপাতালে আসা দূর্গত লোকজনদের পরার কাপড় সরবরাহ করেন , পরিচ্ছন্ন চাদর দেন । তাদের সঙ্গে যারা এসছেন তাদের জন্যে ও তারা মাদুর সরবরাহ করেন। এ ছাড়া তাদেরকে ডাক্তারদের সঙ্গে দেখা করাতে সহায়তা করেন , অন্তসত্বা মহিলাদের ছাত্রীরা চিকিৎসকদের কাছে নিয়ে যান। তিনি আরও বলেন যে এই ঘটনার শিকার অনেকেই মনস্তাত্বিক সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন , তাদের চিকিৎসার জন্যে মনোবিজ্ঞানিরা ও এগিয়ে আসছেন । মেহের নিগার বললেন যে তাঁদের দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনায় রয়েছে , যাদের অঙ্গহানি হয়েছে , তাদের কৃত্রিম অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সংযোজনে সহায়তা প্রদান , প্রতিবন্ধীদের হুইল চেয়ার সরবরাহ এবং তাদের পনর্বাসনের প্রচেষ্টা নেওয়া । এ ব্যাপারে তাঁরা একটি ট্রস্টি তহবিল গঠন করেছেন এবং , যে ভাবে তাঁরা সাড়া পাচ্ছেন , তার পরিপ্রেক্ষিতে আশা করছেন যে তারা আরও সহায়তা পাবেন , দেশ বিদেশ থেকে।

XS
SM
MD
LG