অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মিডিয়ার জরিপ এবং প্রকৃতপক্ষে ভোটপ্রাপ্তির মধ্যে পার্থক্য থাকতেই পারে: মেহনাজ মোমেন


যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়নের দীর্ঘ প্রক্রিয়া চলছে। গত সপ্তায় আইওয়া ককাসের পর , কয়েকদিন পরেই অনুষ্ঠিত হবে নিউ হ্যাম্পশায়ার অঙ্গ রাজ্যের প্রাইমারি। এ দিকে জনমত জরিপে প্রার্থীদের জনপ্রিয়তার ওঠা নামা ও লক্ষ্য করা যাচ্ছে । এসব কিছুর আলোকে টেক্সাসের এ এন্ড এম ইউনিভার্সিটির সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড মেহনাজ মোমেন ভয়েস অফ আমেরিকার আনিস আহমেদের সঙ্গে এক বিশ্লেষণমূলক সাক্ষাৎকারে এই মনোনয়ন প্রক্রিয়ার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।

আইওয়া ককাসের পর এবং এখন এই নিউ হ্যাম্পশায়ার প্রাইমারীর আগে আমরা লক্ষ্য করছি যে কোন কোন জরিপ অনুযায়ী উভয় দলের মনোনয়ন প্রার্থীদের অবস্থানে রদবদল হয়েছে। রিপাবলিকান দল থেকে ডনাল্ড ট্রাম্প জরিপে আবার এগিয়ে এসছেন, মার্কো রুবিউ তার পরে রয়েছেন , এবং টেড ক্রুজ তৃতীয় স্থানে নেমে এসছেন। অন্যদিকে ডেমক্র্যাটিক পার্টিতে বার্নি স্যান্ডার্স হিলারি ক্লিন্টন এর তুলনায় এই নিউ হ্যাম্পশায়ারের জনমত জরিপে প্রায় দ্বিগুণ এগিয়ে আছেন। জরিপের এই ওঠা নামার বিষয়ে ড মেহনাজ মোমেন বলেন যে ডেমক্রেটিক পার্টির কথা বললে , বার্নি স্যান্ডার্সের নিজ রাজ্য ভারমন্টের পাশের রাজ্য নিউ হ্যাম্পশায়ারে তাঁর একটা আলাদা জনপ্রিয়তা আছে । তা ছাড়া তাঁর নীতিমালার কারণেও তিনি জনপ্রিয়তা পাচ্ছেন। বিশেষত তাঁর নীতিমালা নতুন প্রজন্মকে আকৃষ্ট করেছে। আর রিপাবলিকান দলের প্রার্থীদে নীতিমালার মধ্যে এক ধরণের ভীতির নীতিমালা রয়েছে এবং তাঁদের মধ্যে খুব বেশি একটা পার্থক্য নেই। মেহনাজ মোমেন বলেন যে মার্কো রোবিওর প্রচার অভিযানেও এখন পরিবর্তন এসছে , তিনি বিভাজিত রাজনীতির কথা বলছেন। তিনি জনমত জরিপে জনপ্রিয়তার ওঠা-নামার জন্য মিডিয়ার ভূমিকার কথা ও উল্লেখ করেন। তবে তিনি বলেন মিডিয়ার মাধ্যমে উপস্থাপিত এই সব জরিপের সঙ্গে প্রাইমারীতে প্রকৃত ভোটের এর একটা ব্যবধান থেকেই যাবে।

এবারের নির্বাচনে কোন ইস্যুগুলো প্রাধান্য পেতে পারে এই প্রশ্নের জবাবে ড মেহনাজ মোমেন বলেন যে ইস্যুগুলো সাধারণত প্রাধান্য পেয়ে থাকে যেমন অর্থনীতি কিংবা অভিবাসন বিষয় এগুলোরই প্রাধান্য থাকার কথা কিন্তু এবার রিপাবলিকান দল থেকে মনোনয়ন প্রার্থীরা পররাষ্ট্র নীতির উপর জোর দিচ্ছেন , বার বার সন্ত্রাসবাদের প্রসঙ্গ নিয়ে আসছেন। কাজেই পররাষ্ট্র নীতি রিপাবলিকান পার্টির ভোটারদের কাছে একটা বড় ইস্যু হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে ড মেহনাজ মোমেন মনে করেন। তিনি মনে করেন অর্থনীতির ক্ষেত্রে যেহেতু ডেমক্র্যাটরা ভালো করছে , সেহেতু রিপাবলিকানরা সেই প্রসঙ্গে না গিয়ে পররাষ্ট্র নীতিমালার উপরই জোর দিচ্ছেন। অন্যান প্রসঙ্গের মধ্য ডেমক্র্যাট রা অর্থনীতি এবং অভিবাসনের বিষয়টি তো এনেছেনই বিশেষত বার্নি স্যান্ডার্স নির্বাচনী প্রচরাভিয়ানে অর্থায়নের কথা ও উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন ডেমক্র্যাট দলের দু জন প্রার্থীই আশার রাজনীতি নিয়ে কথা বলছেন সেটা তরুণ প্রজন্মকে আকৃষ্ট করেছে। তা ছাড়া শিক্ষা নীতিসহ আন্যান্য নীতিমালা সম্পর্কে বার্নি স্যান্ডার্স তাঁর কর্মসূচী খুব পরিস্কার ভাবে বলেছেন।

রিপাবলিকান দলের বহুল আলোচিত প্রার্থী ডনাল্ড ট্রাম্প আইওয়া ককাসে জয়ী না হওয়া সত্বেও জরিপে যে তাঁর দলের প্রার্থীদের তূলনায় এগিয়ে আছেন সে প্রসঙ্গে ড মেহনাজ মোমেন বলেন এ ব্যাপারে কিছুটা কাজ করেছে মিডিয়া হাইপ । তবে সাংবাদিকরাও এ ব্যাপারে ঠিক মতো পূর্বাভাষ দিতে পারছেন না। তাছাড়া ডনাল্ড ট্রাম্প তাঁর মতে র‍্যাডিকাল এবং এমন ভাবে কথা বলছেন যে কথাগুলো তাঁকে আবার আশ্চর্যজনক ভাবে জনপ্রিয় করে তোলে। তবে এই জনপ্রিয়তা আর প্রাইমারীতে সত্যিকার অর্থে জয়লাভ করা ভিন্ন কথা।

XS
SM
MD
LG