অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

অবরোধে গার্মেন্টস শিল্পে বর্ধিত ব্যয়, সঙ্কুচিত আয় : বিজেএম ই এ ‘র প্রেসিডেন্ট

  • আনিস আহমেদ

বাংলাদেশে হরতাল ও অবরোধের কারণে দেশের গার্মেন্টস শিল্পে যে বিপুল ক্ষতি হচ্ছে , তারই চালচিত্র তুলে ধরেছেন বাংলাদেশে পোশাক রপ্তানীকারকদের সংগঠন BGMEA ‘র প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আতিকুল ইসলাম ।ভয়েস অফ আমেরিকাকে দেওয়া এক একান্ত সাক্ষাৎকারে বিজিবমে ই এ ‘র প্রেসিডেন্ট বলেন যে প্রায় পাঁচ হাজার কোটি টাকার গার্মেন্টস বিমানে করে পাঠানো হয়েছে। এবং বিদেশি কোম্পানিগুলো এই পণ্য এয়ারলিফট করেছে বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন দেশে । অর্থাৎ পাঁচ হাজার কোটি টাকা আরেকটি দেশে চলে গেল রাজনৈতিক অস্থিরতার জন্য। দ্বিতীয়ত গার্মেন্টস এর ক্ষেত্রে ডিসকাউন্ট ও হয়েছে। তাই যদিও রপ্তানী বৃদ্ধি হয়েছে ১৮ শতাংশের বেশি কিন্তু সব শুদ্ধ ডিসকাউন্ট হয়েছে নয় হাজার কোটি টাকার মতো। । তার মানে হচ্ছে ক্ষতি হয়েছে প্রায় চৌদ্দ হাজার কোটি টাকা। তিনি আরও বলেন যে সরবরাহ চেইনে অসুবিধে দেখা দিয়েছে। এই গার্মেন্টস এ ব্যবহৃত অধিকাংশ কাঁচা মালই তাঁরা এখন দেশেই পান। গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিগুলোকে যদি ও হরতালের আওতা মুক্ত রাখা হয়েছে কিন্তু গার্মেন্টস এর সাপ্লাই লাইনের অন্যান্য পণ্যের প্রাপ্তি প্রায় দুষ্কর হয়ে উঠেছে। তিনি ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে , ট্রাকে করে তৈরি পোশাক রপ্তানিতে সরকারী সহযেযাগিতার প্রশংসা করেন কিন্তু বলেন যে অবরোধের কারণে তৈরি পোশাক চালান দেওয়ার খরচ কয়েক গুণ বেড়ে গেছে। বিজিএমই এ ‘র প্রেসিডেন্ট বলেন যে তাদেঁর কাছে সব চেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে শ্রমিকদের বর্ধিত হারে মজুরি প্রদান অথচ তাঁদের আয় কমছে ক্রমশই।

আতিকুল ইসলাম বলেন যে দুটি দলের দু জন নেত্রী উভয়ই প্রধানমন্ত্রী এবং বিরোধীদলীয় নেত্রীর পদে আসীন থেকেছেন , তাঁরা মুদ্রার এ –পিঠ ও-পিঠ সম্পর্কে ভালো জানেন । সে জন্যেই ব্যবসায়ী হিসেবে তাঁরা আশা করেন যে রাজনৈতিক আলোচনার মাধ্যমে দেশের এই অশ্বস্তিকর পরিবেশের অবসান ঘটবে।


XS
SM
MD
LG