অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জাতিসংঘ এক নতুন প্রতিবেদনে বলেছে ইসলামিক ষ্টেটের সঙ্গে ইরাকের যুদ্ধে ২০১৪ সালের জানায়ারী থেকে ২০১৫ সালের অক্টোবর পর্যন্ত ১৮ হাজার ৮০০ অসামরিক লোক মারা গেছেন এবং আহত হয়েছেন ৩৬ হাজার জন। Lisa Schlein এর রিপোর্ট শোনাচ্ছেন সেলিম হোসেন।

গত বছরেরর মে থেকে অক্টোবর পর্যন্ত ইরাকে ইসলামিক ষ্টেটের সঙ্গের যুদ্ধে যারা কোনো না কোনো ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ অথবা ঐ যুদ্ধের সঙ্গে সম্পৃক্ত বা প্রত্যক্ষদর্শী; তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় ৪ হাজার অসামরিক মানুষ নিহত হয় এবং আহত হয় ৭ হাজারেরও বেশী। এসব মৃত্যুর অর্ধেকই ইরাকের রাজধানী বাগদাদে।

জাতিসংঘ মানবাধিকার সংক্রান্ত বিভাগের মুখপাত্রী Ravina Shamdasani বলেন যুদ্ধাবস্থার কারনে ইরাকের প্রকৃত চিত্র স্পষ্টভাবে বলা কঠিন।

“এই পরিসংখ্যান হচ্ছে সরাসরি যুদ্ধে বা সহিংসতায় যারা মারা যান তাদের হিসাব। আর এই যুদ্ধের কারনে যারা খাবার পানীয় বা চিকিৎসা সেবা না পেয়ে মারা যাচ্ছে তাদের হিসাব নেই। তাছাড়া ইরাকে নিরাপত্তা অবস্থার কারনেও সকল তথ্য যোগাড় করাও সম্ভব না। যেভাবেই হোক এই তথ্যগুলো ইরাক সম্পর্কে ধারনা দেয়”।

জাতিসঘ পর্যবেক্ষকরা বলেন এ্‌ই মৃত্যুর বেশিরভাগই ঘটেছে ইসলামিক ষ্টেটের হামলায়। আর তাদের অধিকাংশই হচ্ছেন এমন যারা আইসিসের আদর্শ বিরোধী; সরকারী কর্মকর্তা, চিকিৎসক, আইনজীবি, সাংবাদিক, আদিবাসী এবং ধর্মীয় নেতা। নারী এবং শিশুরা শিকার হচ্ছেন যৌন নির্যাতন এবং জোরপূর্বক দাসত্ব বরনে।

শামদাসানি বলেন ইসলামিক ষ্টেটের নিজস্ব আইনে বর্বর শাস্তি পাচ্ছে সাধারন মানুষ পাথর ছুড়ে মারা গুলী করা, জবাই করা পুড়িয়ে মারা সহ জঘন্য কায়দায় তারা নির্যাতন করছে মানুষদেরকে। মানবতার চরম লংঘন চলছে ইরাক জুড়ে ইসলামিক ষ্টেট জঙ্গী গোষ্ঠীর কর্মকান্ডে।

জাতিসংঘ রিপোর্টে জঙ্গী গোষ্ঠী ছাড়াও সরকারী বাহিনী কতৃকও আইন বহির্ভূত হত্যাকান্ড সহ মানবাধিকার লংঘনের কিছু প্রমান মিলেছে।

XS
SM
MD
LG