অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইসরায়েল গাজায় আরও সৈন্য পাঠিয়েছে, সেখানকার নাগরিকরা পালিয়ে যাচ্ছে


রোববার ফিলিস্তিনিরা মৃতের সংখ্যা বাড়ছে বলে খবর দিয়েছে। ওদিকে, ইসরাইলী বাহিনী গাজার শিজায়া এলাকায় হামাসের বিরুদ্ধে স্থল ও বিমান অভিযান চালিয়েছে।

হাজার হাজার ফিলিস্তিনী ঐ জেলা ছেড়ে চলে গেছে। চারিদিকে মরদেহ আর ধ্বংসস্তুপ।

ফিলিস্তিনী স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, রোববারের লড়াইয়ে ৬০ জনেরও বেশি মানুষ মারা গেছে। তাঁরা আরো বলছেন, গত দু সপ্তাহে গাজায় মৃতের সংখ্যা ৪শ ছাড়িয়ে গেছে। এদের বেশিরভাগই অসামরিক মানুষ।

ইসরাইলী সামরিক বাহিনী বলেছে, রোববার তাদের ১৩জন সেনা মারা গেছে। জুলাইয়ের ৮ তারিখ থেকে এ নিয়ে ২০জন ইসরাইলী মারা গেছে, যাদের ১৮জন সৈন্য এবং ২জন অসামরিক ব্যক্তি।

ইসরাইলী সেনাবাহিনী বলছে, তারা ক্ষেপণাস্ত্রের মজুদ ধ্বংস করতে চেষ্টা করছে। সেইসাথে ইসরাইলে অনুপ্রবেশের জন্যে হামাস যে সুরঙ্গপথ তৈরি করেছে তাও ধ্বংস করতে চেষ্টা করছে তারা।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি, গাজা ভূখন্ডে অব্যাহত লড়াইয়ের জন্যে হামাসকে দায়ী করেছেন।

রোববারে, ইসরাইলী হামলায় আরো ৬০জন ফিলিস্তিনী মারা গেছে।

রোববার মিঃ কেরি টেলিভিশনে বেশ কয়েকটি সাক্ষাতকার দেন। সেখানে তিনি বলেছেন, হামাস জঙ্গীরা, অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে। প্রায় দু সপ্তাহ ধরে সেখানে যে হামলা চলছে তাতে, গাজার ৪শ ২৫জন নাগরিক মারা গেছে, যাদের বেশিরভাগই অসামরিক নাগরিক। ইসরাইলে মারা গেছে ২০জন।

মিঃ কেরি বলেছেন, হামাস যে ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়ছে, তা থেকে ইসরাইলের নিজেকে রক্ষার অধিকার আছে। ইসরাইল, তিনদিন আগে গাজায় স্থলবাহিনী পাঠিয়েছে। মিঃ কেরি বলেছেন, এই রকেট হামলা চালিয়ে, হামাস আরো মারাত্মক আক্রমণ ডেকে আনছে।

তিনি গাজার পরিস্থিতিকে কুতসিত বলে বর্ণনা করেছেন। অবশ্য বলেছেন, হামাসকে তাদের দায়িত্ব স্বীকার করতে হবে।

XS
SM
MD
LG