অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইস্রাইলী ট্যাঙ্কের হামলায় গাযা ভূখন্ডে, জাতিসংঘ পরিচালিত স্কুল ভবনে-হত কম হলেও পনেরো জন

  • VOA Editor

ইস্রাইলী ট্যাঙ্ক গোলার আঘাত হেনেছে গাযা ভূখন্ডে, জাতিসংঘ পরিচালিত একটি স্কুল ভবনে- এতে কম হলেও, মারা গিয়েছে পনেরো জন। এবং এর পরই ইস্রাইল স্বল্পক্ষণের এক অস্ত্রবিরতির ডাক দিয়েছে।চার ঘণ্টার এই পরিকল্পিত অস্ত্রবিরতি শুরু হবার কথা স্থানিয় সময় বিকেল তিনটে থেকে। এ ট্যাঙ্ক হামলা হয় আজ বুধবার সকাল বেলায়,জাবালিয়া শরনার্থী শিবিরে- গাযার উত্তরাংশে।

ভয়েস অফ এ্যামেরিকার স্কাট বাব ঘটনাস্থলে যান-বলেন, সে একেবারে লন্ডভন্ড অবস্থা।নির্দিষ্ট যে ক্লাসরুমে আঘাত লেগেছে-নিহতদের বেশিরভাগই ছিলো সেখানটাতে-গা শিউরে ওঠার মতো অবস্থা। কেউ কেউ বললেন-হামলার ভয়ে লোকজন ওখানে গিয়েই আশ্রয় নিয়ে ছিলেন।এখন লোকজন বলছেন-এখানে,এই জাতিসংঘের স্কুলেও যদি নিরাপত্তা না থাকে তো আমরা বরং বাড়ি ফিরে গিয়ে সেখানেই মরবো।ফিলিস্তিনী শরনার্থী সংশ্লিষ্ট জাতিসংঘ সংস্থা বলছে-এই স্কুল ভবনটি হলো সেই ৮৫টি অবস্থানেরই একটি যেখানে দু’ লক্ষেরও বেশি মানুষ এখন রয়েছেন আশ্রয়ের সন্ধানে।

ফিলিস্তিনী স্বাস্থ বিভাগীয় জনৈক কর্তাব্যক্তি আগে বলেছিলেন – এতে নিহত হয়েছে ২০ ব্যক্তি। ইস্রাইল যে নিরন্তর বিমান ও ট্যাঙ্ক হামলা চালিয়ে যাচ্ছে এই গোলার আঘাত ছিলো তারই অংশ বিশেষ-যে আঘাতে বুধবারে কমসে কম ৩২ জনের প্রাণ বিনাশ হয়েছে।ফিলিস্তিনী কর্মকর্তারা বলছেন-আট জুলাই থেকে নিয়ে এ অবধি বারো শয়েরও বেশি লোক প্রাণ হারিয়েছে- যার বেশির ভাগই অসামরিক লোকজন।ইস্রাইলের তরফে মারা গিয়েছে সৈন্য ৫৩ জন- অসামরিক লোক তিন।

XS
SM
MD
LG