অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইস্রাইলের এক সৈনিকের বিনিময়ে শত শত ফিলিস্তিনী বন্দী মুক্তি পেয়েছে


ইস্রাইলের এক সৈনিকের বিনিময়ে শত শত ফিলিস্তিনী বন্দী মুক্তি পেয়েছে

ইস্রাইলের এক সৈনিকের বিনিময়ে শত শত ফিলিস্তিনী বন্দী মুক্তি পেয়েছে

ইস্রাইলের এক সৈনিক পাঁচ বছর হামাস জঙ্গীদের হাতে আটকে থাকবার পর এখন মুক্তি পেয়েছে – অন্যদিকে মুক্তি পেয়েছে শত শত ফিলিস্তিনী বন্দীও ইস্রাইলের কারাগার থেকে, তার বিনিময়ে । ইস্রাইলের সামরিক মুখপাত্র জেনারেল ইয়োয়াভ মোরদেশাই শালিতের ঐ মুক্তি পাবার কথা ঘোষণা করেন । ইস্রাইলের সামরিক হেলিকপ্টার গিলাদ শালিতকে নিয়ে যায় ইস্রাইলের মধ্যাঞ্চলবর্তী এক বিমান ঘাঁটিতে – সেখানেই অপেক্ষা করে ছিলেন শালিতের মা বাবা নোয়াম ও আভিভা দম্পতি, ছেলের জন্যে ।

শালিত ধরা পড়েছিলেন ফিলিস্তিনী জঙ্গীদের হাতে ২ হাজার ৬ সালে গাজা থেকে সীমান্তপারে চালানো এক হামলা অভিযানে । শালিতের বয়স এখন ২৫ বছর । শালিতকে হামাস হস্তান্তর করে এই বিনিময় রফায় মধ্যস্থতাকারী মিশরের কাছে মঙ্গলবার সকালেই । এক সপ্তাহ আগেই শালিত তাঁর মুক্তির কথা জানতে পেরেছিলেন বলে মিশরের নাইল টিভিকে জানান তিনি ।

ওদিকে মুক্তিপ্রাপ্ত ফিলিস্তিনীদের কেউ কেউ বাড়ি ফিরতে পারেননি । পশ্চিমতটের বাসিন্দা কয়েক ডজন ফিলিস্তিনীকে পাঠানো হয় গাযায় অথবা অন্য কোনোখানে – পশ্চিম তটে নয় । হালাল জারাদকেও পশ্চিম তটে পাঠানো হয়নি । আল জাযিরা টেলিভিশনকে হালাল জারাদ জানান – মন তাঁর খুবই খারাপ , পরিবারের সঙ্গে দেখা হচ্ছেনা তাই । তবে এখন ভাবছেন , এখানেই ঘর বেঁধে বিয়ে-শাদী করে আবার নতুন করে জীবন শুরু করবেন তিনি । ইতিমধ্যে ফিলিস্তিনী নেতা মাহমূদ আব্বাস বন্দী মুক্তিতে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন ।

এই বন্দী বিনিময় কর্মসূচীতে ৪৭৭ ফিলিস্তিনী কারাবন্দীর মুক্তির বিনিময়ে শালিতের মুক্তির জন্যে আহ্বান জানানো হয় । মিশরের মধ্যস্থতায় সম্পন্ন এ রফার আওতায় দু’মাসের ভেতরে ইস্রাইলকে আরো সাড়ে পাঁচশ ফিলিস্তিনী বন্দীকে মুক্ত করতে হবে ।

XS
SM
MD
LG