অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের সহযোগিতা সম্পর্কে ভারত অত্যন্ত আশাবাদি:জয়ন্ত ঘোষাল

  • সরকার কবীরুদ্দিন

যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের কর্মকর্তারা ওয়াশিংটনে সন্ত্রাস,জলবায়ু পরিবর্তন এবং অন্যান্য বৈশ্বিক সমস্যা বিষয়ে সহযোগিতা বৃদ্ধির লক্ষে গত বৃহস্পতিবার থেকে তিন দিন ব্যাপী এক সংলাপে মিলিত হয়েছেন। এই সংলাপ সম্পের্ক ভারতের শিক্ষিত বিশেষ করে নতুন প্রজন্মের মধ্যে আশাবাদের সঞ্চার হয়েছে বলে এক সাক্ষাৎকারে আমাদের বলেছেন কোলকাতার আনন্দ বাজার পত্রিকার নতুন দিল্লির বুরো চীফ জয়ন্ত ঘোষাল। তিনি স্মরণ করিয়ে দেন যে তরুণ সম্প্রদায় হচ্ছে ভারতের ভোটদাতাদের একটি উল্লেখযোগ্য সংখ্যা এবং তাঁরা যুক্তরাস্ট্রের সঙ্গে সুসম্পর্ক কামনা করেন।



জয়ন্ত ঘোষাল বলেন যে ষাট কিংবা সত্তরের দশকে যেমন একটা কমিউনিস্ট কেন্দ্রিক মার্কিন বিরোধী মনোভাব ছিল,আর্থিক উদারিকরণের কারণে সেটি ক্রমশই লোপ পাচ্ছে এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আগ্রহ ক্রমশই বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে তিনি স্বীকার করেন যে ভারতের অনেকেই মনে করেন যে যুক্তরাষ্ট্র পাকিস্তানের প্রতি যে নরম মনোভাব নিচ্ছে সেটা অনুচিত কারণ পাকিস্তান তার গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে যে সব নাশকতামুলক কাজ বা প্রক্সি ওয়ার চালিয়ে যাচ্ছে সে ব্যাপারে ভারতের প্রশাসন আরো কঠোর পদক্ষেপ প্রত্যাশা করেন।

জয়ন্ত ঘোষাল বলেন ভারত – যুক্তরাষ্ট্র বানিজ্য বৃদ্ধি এবং নভেম্বর মাসে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ভারত সফরকে সামনে রেখে কেবলই ভারতের ক্রবর্ধমান অর্থনীতির প্রেক্ষাপটে এই সম্পর্ককে বিবেচনা না করে এর সঙ্গে কৌশলগত কারণের কথা ও উল্লেখ করেন।

এ দিকে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন বলেছেন যে তিনি আশা করেন যে এই আলোচনা দুটি দেশের মধ্যে ক্রমবর্ধমান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিষয়ে দীর্ঘ দিন থেকে চলে আসা সংশয়ের অবসান ঘটাবে।
এই দ্বিপাক্ষিক আন্ত-দপ্তর সংলাপ, যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের মধ্যকার মৈত্রির দিকটিকেই তুলে ধরেছে যে সম্পর্কে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সম্প্রতি বলেছেন যে এটি হবে একুশ শতকের সব চেয়ে বিশিষ্ট সহযোগিতা।

XS
SM
MD
LG