অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জঙ্গী মোকাবেলায় পাকিস্তান সেনাবাহিনীর অগ্রগতির প্রশংসা করেছেন জন কেরী


পাকিস্তানের উত্তর পশ্চিমাঞ্চলে জঙ্গী মোকাবেলায়, পাকিস্তান সেনাবাহিনীর অগ্রগতির প্রশংসা করেছেন যুক্তরাস্ট্রের পররাস্ট্রমন্ত্রী জন কেরী। ইসলামাবাদে যুক্তরাস্ট্র ও পাকিস্তানের কর্মকর্তাদের বৈঠকে জন কেরী এ মন্তব্য করেণ। বৈঠকে বানিজ্য, অর্থণৈতিক উন্নয়ন ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধের কৌশলগত দিকসহ নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। ভয়েস অব আমেরিকার পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় বিষয়ক প্রকিবেদক পাম ডকিনসের প্রতিবেদন থেকে তথ্য নিয়ে আলোচনা করছেন রোকেয়া হায়দার এবং সেলিম হোসেন।

যুক্তরাস্ট্রের পররাস্ট্রমন্ত্রী জন কেরী এবং পাকিস্তানের জাতিয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা সারতাজ আজিজ নিজ নিজ উপদেষ্টাদের সঙ্গে নিয়ে করা ইসলামাবাদের ঐ বৈঠকে মূলত ৫টি খাত: জ্বালানী, অর্থনৈতিক উন্নতি, সামাজিক স্থিতি প্রতিষ্ঠা এবং শিক্ষা ও স্বাস্থ্য উন্নয়নে দু’দেশের সহযোগিতার ভিত্তিতে পরিচালিত কর্মকান্ডের অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা করেন।

বৈঠকে তারা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ে কাজ করতে ষষ্ঠ একটি কর্ম-দল গঠণ করার ঘোষণা দেন।

জন কেরী বলেন শেষবার অনুষ্ঠিত দ্বিপাক্ষিক কৌশলগত আলোচনার পর থেকে যুক্তরাস্ট্র ও পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক বিনিয়োগ ও বানিজ্য সম্প্রসারণের ওপর জোর দিয়েছিল।

জন কেরী বলেন, “ইতিমধ্যেই বার্ষিক দ্বি-পক্ষীয় বানিজ্য ৫০০ কোটি ডলারের ওপরে পৌঁছেছে এবং যুক্তরাস্ট্র এখন পাকিস্তানের সর্ববৃহৎ রপ্তানী বাজার”।

তিনি আরো বলেন অঞ্চলিক আন্ত:সংযোগের কথা মাথায় রেখেই যুক্তরাস্ট্র ও পাকিস্তানের মধ্যকার অংশীদারিত্ব সম্পর্ক রাখতে হয়েছে, যার মধ্যে ছিল আফগানিস্তানের নিরাপত্তা ও স্থিতি প্রতিষ্ঠায় ভারত পাকিস্তান যেনো যৌথভাবে সহযোগিতা করে সে বিষয়টিও বিবেচনা করা।

জন কেরী বলেন, “পাকিস্তানের দুই শীর্ষ সেনা কর্মকর্তা ও গোয়েন্দা প্রধানের সাম্প্রতিক কাবুল সফর ছিল খুব উৎসাহব্যাঞ্জক লক্ষন যার মধ্য দিয়ে আমি আশা করি ভবিষ্যতে পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের মধ্যকার সম্পর্কের নতুন যুগের শুরু হল”।

ইসলামাবাদে বৈঠক শেষে জন কেরী ও সারতাজ আজিজ যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বলেন পাকিস্তান চায় পূর্ব ও পশ্চিম উভয় সীমান্তের প্রতিবেশীর সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে।

সারতাজ আজিজ বলেন, “আমরা আশা করি যুক্তরাস্ট্র, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রভাবশালী সদস্য হিসাবে ভারতকে আঞ্চলিক শান্তি ও অর্থনৈতিক উন্নতি সাধনে পাকিস্তানের সঙ্গে মিলে মিশে কাজ করার ব্যাপারে বোঝাবেন”।

বৈঠকে যুক্তরাস্ট্র ও পাকিস্তান একমত হন যে আফগানিস্তানের শান্তি ও স্থিতির পূর্বশর্ত হচ্ছে পাকিস্তান এবং ঐ অঞ্চলের শান্তি ও স্থিতি প্রতিষ্ঠা।

XS
SM
MD
LG