অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জর্দানে ইরাকী মহিলা সন্ত্রাসীকে মুক্তি দেয়ার সময়সীমা অতিক্রান্ত


ইসলামিক স্টেটের পণবন্দী নাটকের সময়সীমা পার হয়ে হয়ে গেছে কারণ জর্দান বলছে যে ইসলামিক স্টেটের জঙ্গিদের হাতে আটক তাদের পাইলট এখনও জীবিত আছে কী না সেটা তারা নিশ্চিত হতে চায় ।

এর আগে ইসলামিক স্টেটের জঙ্গিরা যে জাপানী সাংবাদিককে বন্দী করে রেখেছে , অনুমান করা হচ্ছে তারই কন্ঠে দেওয়া এক বার্তায় বলা হয়েছে যে ঐ আই এস জঙ্গিদের হাতে আটক জর্দান বিমান বাহিনীর একজন পাইলট মুয়াস আল কাসাসবেহকে হত্যা করা হবে , যদি না আজ সুর্যাস্তের আগেই তাদের একজন মহিলা আত্মঘাতী বোমা বাজ সাজিদা আল রিশাওয়ীকে জর্দান ফেরত দেয়। ২০০৫ সালে আম্মানে বোমা বিস্ফোরণে তার ভূমিকার জন্য , সে জর্দানে মৃত্যদন্ড প্রাপ্তা একজন আসামী।

জর্দান সরকারের একজন মুখপাত্র আজ বৃহস্পতিবার জানান যে কর্তৃপক্ষ ঐ নারী আত্মঘাতী বোমাবাজ সাজিদা আল রিশাওয়ীর মুক্তির বিষয়টি বিবেচনা করে তখনই দেখবেন যখন তারা নিশ্চিত হবেন যে তাদের বিমান চালক মুয়াস আল কাসাসবেহ জীবিত আছেন।

জঙ্গিদের বেঁধে দেওয়া সময়সীমা শেষ হয়ে যাওয়র সময়ে আল কাসাসবেহ’র বাবা তাঁর ছেলেকে মুক্তি দেবার আবেদন জানান।

জাপান এবং জর্দানের কর্তৃপক্ষ এই নতুন অডিও রেকর্ডিং টি সনাক্ত করার চেষ্টা করছেন। বলা হচ্ছে এটি জাপানী সাংবাদিক কেনজি গোতোরই কন্ঠস্বর। তবে ঐ অডিও বার্তায় এমন কোন আশ্বাস দেওয়া হয়নি যে এর পরিবর্তে

XS
SM
MD
LG