অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

যুক্তরাষ্ট্রে আজকের নির্বাচন নিয়ে বিশেষ আলোচনা

  • আনিস অহমেদ

আমাদের এই বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠানে শ্রোতাদের স্বাগতম জানাচ্ছি। স্টুডিওতে আমার সঙ্গে রয়েছেন রোকেয়া হায়দার। আর টেলিসম্মিলনী লাইনে আমাদের সঙ্গে যোগ দিচ্ছেন ম্যারিল্যান্ডের সিভার স্প্রিং শহর থেকে শেগুফতাহ নাসরিন কুইন এবং ম্যারিল্যান্ড থেকে বিশিষ্ট রাষ্ট্রবিজ্ঞানি ড সাইদ ইফতিখার আহমেদ ও যোগ দিয়েছেন। তা ছাড়া নিউ ইয়র্ক থেকে জামিল আহমেদ এবং লস এঞ্জিলিস থেকে সাইফুর রহমান ওসমানিও ভোট গ্রহণের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে আমাদের জানাবেন।

দীর্ঘ প্রচার অভিযান , শেষ মূহুর্তের টান টান উত্তেজনা সব কিছুকে ছাপিয়েছে আজ ৬ই নভেম্বর অবশেষে যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে । যদি ও সর্বাধিক মনোযোগটা প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের উপর যেখানে দুই প্রধান প্রার্থি ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবং মেসাচুসেটস অংগ রাজ্যের সাবেক গভর্ণর মিট রমনি তুমুল এক প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখোমুখি এর পাশাপাশি আজ কিন্তু হাউজ অফ রিপ্রেজিনটেটিভ বা প্রতিনিধি পরিষদের ৪৩৫ জন সদস্য এবং সেনেটের ১০০ টি আসনের এক তৃতীয়াংশ অর্থাৎ ৩৩ টি আসনের জন্যে ও আজ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তবে ঐ যে বলছিলাম যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পদের নির্বাচনের দিকেই নজর বিশ্ববাসীর।

গতকাল সোমবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের চূড়ান্ত প্রচারাভিযানে বারাক ওবামা এবং মিট রমনি দু জনই বেশ জোরালো এবং বলা যায় বেশ আবেগপূর্ণ বক্তব্য রেখেছেন নিজেদের পক্ষে। এই যেমন গতকাল উইসকন্সিন অঙ্গরাজ্যে বরাক ওবামা বলেন যে আমরা এই সংগ্রামে লিপ্ত কারণ আমরা জানি আমেরিকা সব সময়ে এগিয়ে থেকেছে। আমরা চাই সকলেই তাদের ন্যায্য হিসস্যা পাক। সে জন্যেই আপনারা আমাকে ২০০৮ এ ভোট দিয়েছিলেন , আবার সেজন্যেই আমি দ্বিতীয় মেয়াদে জন্যে প্রেসিডেনট্ট পদে দাড়িয়েছি।

অন্য দিকে মিট রমনি ফ্লরিডায় বলেন যে প্রেসিডেন্ট অনেক কিছু বদলানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন কিন্তু তার পরিবর্তন তো কেবল তার ভাষণ দিয়ে পরিমাপ করা যাবে না , তার অর্জন দিয়ে পরিমাপ করতে হবে।

এই সব যুক্তি-পাল্টা যুক্তির আলোকে এবং ভোটদাতারা কি ভাবছেন , সে নিয়েই আমাদের এই বিশেষ আয়োজন।

XS
SM
MD
LG