অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের শোলাকিয়ায় পুলিশের উপর জঙ্গিদের আক্রমণ: হতাহতের ঘটনা


বাংলাদেশ আজ বৃহস্পতিবার ঈদের জামাতের কাছে ইসলামপন্থি জঙ্গিদের বোমা নিক্ষেপে এবং গোলাগুলিতে কমপক্ষে দু জন পুলিশ নিহত এবং আরও অনেকেই আহত হয়েছে।

কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় ইদুল ফিরতরের নামাজের জন্য সমেবত জামাতের বাইরে পুলিশের উপর ঘরে তৈরি হাত বোমা নিক্ষেপ করা হয়। এই বিস্ফোরেণর পর হামলাকারীদের একজন ও নিহত হয়।

জানা গেছে আক্রমণকারীরা চাপাতি বহন করছিল। দক্ষিণ এশিয়ার ইসলামপন্থি জঙ্গিদের কাছে এই চাপাতি হচ্ছে খুবই পছন্দসই অস্ত্র। তারা এসব ব্যবহার করে ধর্মীয় সংখ্যালঘু, সমকামী ব্যক্তি , মুক্তমনা চিন্তাবিদ ও অধ্যাপকদের উপর আক্রমণ চালিয়েছে।

বাংলাদেশ, সৌদি আরব, ইরাক , সিরিয়া , যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য দেশে , পবিত্র রমজান মাসে এ ধরণের হামলায় সাড়ে তিন শ ‘র ও বেশি লোক প্রাণ হারিয়েছেন।

মাত্র গত সপ্তায় জঙ্গিরা বাংলাদেশে একটি রেস্টুরেন্টে বহু লোককে পণবন্দী কের রাখে। ঐ ঘটনায় মোট ২৮ জন নিহত হন।

গুলশানের সন্ত্রাসীহামলার ঘটনার সপ্তাহ পার হওয়ার আগেই বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় দেশের সবচেয়ে বড় ঈদ জামায়াতের মাঠের একেবারেই কাছে সন্ত্রাসীদের চাপাতির আঘাত, গুলি ও বোমা বিস্ফোরনেরঘটনায় কমপক্ষে ৪জননিহত হয়েছেন। এর মধ্যে দু’জন পুলিশ সদস্য, একজন নারী এবং একজন হামলাকারী নিহত হন। এ ঘটনায় কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছেন, তাঁদের মধ্যে বেশির ভাগই পুলিশ সদস্য। ৫ জন পুলিশ সদস্যকে গুরুতর আহত অবস্থায় হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে আনা হয়েছে। পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় দুজন সন্দেহভাজন হামলাকারীসহ ৪জনকে আটক করা হয়েছে। এলাকায় পুলিশ, র‌্যাবসহ আইন-শৃংখলা রক্ষা বাহিনীর অভিযান চলছে। ঘটনাস্থল থেকে দুটি রিভলবার, বোমা ও ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। দেশে এই প্রথম কোন ঈদের জামায়াতে এ ধরনের কোনো হামলার ঘটনা ঘটলো।
শোলাকিয়ায় ঈদ ময়দানে এ বছর প্রায় ৩ লাখের মতো মুসল্লী অংশ নিয়েছেন। অসংখ্য মানুষ যখন ময়দানের দিকে আসছিলেন, তখন ঐ মাঠের কাছেই পুলিশের একটি নিরাপত্তা তল্লাশী চৌকিতে সন্ত্রাসীরা বাধা পেয়ে প্রথমে চাপাতি দিয়ে পুলিশ সদস্যদের কোপাতে থাকে। এরপর গুলি বর্ষণ এবং বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে দুজন পুলিশ সদস্য নিহত হন। পরে পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে পার্শ্ববর্তী বাড়ির একজন হিন্দু ধর্মাবলম্বী গৃহবধূ এবং একজন হামলাকারীনিহত হয়। কোনো জঙ্গী সংগঠন এখন পর্যন্ত ঘটনার দায় স্বীকার করেনি। তবে নিরাপত্তা বিশ্লেষকদের ধারণা এটি জঙ্গীদের হামলা।
এদিকে, বাংলাদেশ এবং ভারতের সংবাদ মাধ্যম কর্মকর্তাদের নাম উল্লেখ না করে তাদের বরাতে বলছে, গুলশান এবং শোলাকিয়ায় হামলার ঘটনা সরেজমিনে পর্যালোচনা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ভারতীয় National Security Group -এর প্রতিনিধি দল ঢাকা আসবে শিগগিরই।..ঢাকা থেকে আমীর খসরু

.

XS
SM
MD
LG